kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ কার্তিক ১৪২৮। ২৬ অক্টোবর ২০২১। ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ভাঙনে বিলীন স্মৃতিচিহ্ন, জিয়ারতে এসে দেখলেন হাড়

রায়পুরা (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

২৭ আগস্ট, ২০২১ ১৭:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভাঙনে বিলীন স্মৃতিচিহ্ন, জিয়ারতে এসে দেখলেন হাড়

স্ত্রীর মৃত্যুর দুই দশক পর মারা যান হাজি হাছান আলী। নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার শ্রীনগর ইউনিয়নের ফকিরেরচর গ্রামে শত বছরের পুরোনো সামাজিক কবরস্থানে দুজনকে দাফন করা হয়। সম্প্রতি মেঘনার ভাঙনে কবরস্থানটি প্রায় বিলীনের পথে। এমন সংবাদ শুনে বৃহস্পতিবার দাদা-দাদির করব জিয়ারত করতে আসেন আব্দুল মোত্তালিব।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা হলে তারা জানায়, উপজেলার শ্রীনগর ইউনিয়নের ফকিরের চর এলাকায় মেঘনার পাড়ে শত বছর আগের সামাজিক কবরস্থান এটি। ২০ বছর আগে কবরস্থানের পাশে একটি মাদরাসা ও এতিমখানা প্রতিষ্ঠা করা হয়। গ্রামের অধিকাংশ মানুষের স্বজনরা চিরনিদ্রায় আছেন এই স্থানে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, মেঘনার তীব্র স্রোতে কবরস্থান ও মাদরাসার ৮০ শতাংশ জমি বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙনে বেড়িয়ে আসছে, মৃত ব্যক্তিদের হাড় ও কাফনের কাপড়। ভাঙনের কারণে মাদরাসাটি বন্ধের পথে বলে জানান মোহতামিম।

তবে নদী ভাঙন থেকে রক্ষা চায় এলাকাবাসী। তাদের দাবি, প্রশাসন আশ্বাস দিলেও কার্যত কোনো পদক্ষেপ নেয় না।

শ্রী নগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান চৌধুরী আযান বলেন, নদী ভাঙনের তীব্রতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। উপজেলা থেকে চাহিদাপত্র (ডিও লেটার) পাঠানোর হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) কর্তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। এ বছর না হলেও আগামী বছর বেড়িবাঁধ দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। তবে দ্রুত সমস্যার সমাধান করা না হলে পুরো এলাকাটি নদীতে বিলীন হয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

পাউবোর নরসিংদী কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র চক্রবর্তী বলেন, সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলেই কাজ শুরু হবে।



সাতদিনের সেরা