kalerkantho

শনিবার । ৭ কার্তিক ১৪২৮। ২৩ অক্টোবর ২০২১। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

উলিপুরে টিকা সংকট, হতাশা আর ক্ষোভে বাড়ি ফিরছে মানুষ

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৫ আগস্ট, ২০২১ ২০:১৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উলিপুরে টিকা সংকট, হতাশা আর ক্ষোভে বাড়ি ফিরছে মানুষ

কুড়িগ্রামের উলিপুরে করোনার টিকা সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে টিকা দেওয়া বন্ধ হয়েছে। এদিকে টিকা না পেয়ে প্রতিদিন শত শত মানুষ হাসপাতাল চত্বরে ভিড় জমাচ্ছেন। দূরদূরান্ত থেকে আসা এসব মানুষ সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করে হতাশা আর ক্ষোভ নিয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।

তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, চলতি মাসের ৭ আগস্ট থেকে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত প্রতিদিন ২৩০০ থেকে ২৪০০ টিকা প্রদান করা হয়েছে। টিকা স্বল্পতার কারণে টিকা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে না।

সরেজমিনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ জটলা বেঁধে আছেন। বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা এসব মানুষজনের চোখে মুখে হতাশার ছাপ। উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের যমুনা গ্রাম থেকে এসেছেন জরিনা বেওয়া (৮২)। তিনিসহ তার দুই জা আয়েশা বেওয়া (৫৫) ও খায়রন (৬২) এসেছেন করোনার টিকা নিতে। গত ৪ দিন ধরে হাসপাতালে ঘুরেও টিকা পাননি তারা। এ সময় তাদের সাথে কথা হয় এ প্রতিবেদকের।

জরিনা বেগম বেগম বলেন, পন্তার বেলায় (সকাল বেলা) আসছং বাবা, টিকে নিবের জন্য আজও টিকে দিলে না। ৪ চার দিন থাকি বাবা হাসপাতালত ঘুরবের নাগছং। প্রত্যেকদিন যাইতে আসতে ৫০ টেকা খরচ হয়। কুনদিন টিকে দিবে তাকও ভালো করি কয় না। খালি কয় টিকে নাই বাড়ি যাও। এ সময় পাশে বসে থাকা উপজেলার বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের জনতার হাট এলাকার ঝুমড়ি (৫৫), জয়মালা বালা (৭৫), একই কথা জানান।

উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের জানজায়গীর গ্রামের জাহানার বেগম, কালপানি বজরার কছভান বেগম, মাহমুদা বেগম, হাতিয়ার জরিনা বেওয়া, দড়িচর গ্রামের মোর্শেদা বেওয়াসহ শত শত নারী পুরুষ টিকা নিতে ফিরে যাচ্ছেন। এক দিকে তাদের যেমন হতাশা অন্য দিকে রয়েছে ক্ষোভও। তারা বলেন, প্রতিদিন আমরা টাকা খরচ করে টিকা নিতে আসি। কিন্তু টিকা নিতে পারি না। শুনতেছি এখন নাকি টিকা দেবে না। কবে দিবে সেটাও জানি না। হামরা গরিব যাইতে আসতে টাকা শেষ। দীর্ঘ অপেক্ষার পর টিকা না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন এসব মানুষজন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুভাষ চন্দ্র সরকার বলেন, সিনোফার্ম ভ্যাকসিন স্বল্পতার কারণে টিকা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। চাহিদা পাঠানো হয়েছে। সাপ্লাই হলে আবার টিকা প্রদান করা হবে।



সাতদিনের সেরা