kalerkantho

শুক্রবার । ৬ কার্তিক ১৪২৮। ২২ অক্টোবর ২০২১। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কাল থেকে চলবে প্রতীকী ক্লাস

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৫ আগস্ট, ২০২১ ১৮:২৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কাল থেকে চলবে প্রতীকী ক্লাস

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে প্রায় দেড় বছর থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এরপর সরকারের পক্ষ থেকে একাধিকবার উদ্যোগ নেওয়া হলেও শেষ পর্যন্ত খোলা সম্ভব হয়নি। তবে সম্প্রতি করোনা সংক্রমণ কিছুটা নিম্নমুখী হওয়ায় এবং টিকা কার্যক্রম পরিচালনা করায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার জোর দাবি জানিয়ে আসছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। 

এরই ধারাবাহিকতায় বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) প্রতীকী প্রতিবাদী ক্লাস নেবেন শিক্ষকরা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উন্মুক্ত স্থানে নেওয়া হবে এসব ক্লাস। স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোনো শিক্ষার্থী এই ক্লাসে অংশ নিতে পারবেন।

বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে প্রথম ক্লাস নেবেন দর্শন বিভাগের অধ্যাপক রায়হান রাইন। ক্যাম্পাস না খোলা পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলতে থাকবে বলে জানান আয়োজক শিক্ষকরা।

কর্মসূচি সম্পর্কে অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে আমরা এই কর্মসূচি পালন করব। এখানে ধারাবাহিকভাবে অন্যান্য শিক্ষকরা ক্লাস নেবেন। এই কর্মসূচি ক্যাম্পাস না খোলা পর্যন্ত চলতে থাকবে। প্রতীকী এই ক্লাসে যেকোনো শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করতে পারবে। তবে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশগ্রহণ করতে হবে।'

তিনি আরো বলেন, 'ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, বিনোদনকেন্দ্র, অন্যান্য প্রশাসনিক ও অর্থনৈতিক কার্যক্রম চালু থাকলে বিশ্ববিদ্যালয় কেন খোলা যাবে না? বিশ্ববিদ্যালয়ে হলে আবাসিক শিক্ষক আছেন, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরাও করোনা বিষয়ে সচেতন। তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেওয়া সবচেয়ে সহজ। আমরা ক্লাস নেওয়ার মাধ্যমে এটাই প্রমাণ করতে চাই যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশ্ববিদ্যালয় খোলা সম্ভব।'

কয়েকজন শিক্ষার্থী কালের কণ্ঠকে বলেন, সরকার বিনোদনকেন্দ্র থেকে শুরু করে সব কিছু খুলে দিয়েছে। শুধুমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাড়া। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই কি শুধু করোনা আছে? সরকার দেড় বছর থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে পঙ্গু করে দিয়েছে। আমরা এমনিতেই সেশনজটে থাকি তার ওপর এত করোনা কারণে সেশনজট আর দীর্ঘ হয়েছে। এখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেওয়া সময়ের দাবি।

অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ জানান, 'বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক নেটওয়ার্ক' নামে সারাদেশে আমাদের একটি সংগঠন আছে। সেখান থেকেই গতকাল (সোমবার) সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতীকী এই ক্লাস সারা দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চলবে। এই কর্মসূচি বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে জনমত তৈরি করবে।

এ ছাড়াও অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌস, অধ্যাপক এ এস এম আনোয়ারুল্লাহ ভূঁইয়া, অধ্যাপক মো. জামাল উদ্দীন, অধ্যাপক মানস চৌধুরী, অধ্যাপক শামীমা সুলতানা প্রমুখও ক্লাস নেবেন।



সাতদিনের সেরা