kalerkantho

সোমবার । ৫ আশ্বিন ১৪২৮। ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১২ সফর ১৪৪৩

টিকার আওতায় ঈশ্বরদী ইপিজেড শ্রমিকরা

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

২৪ আগস্ট, ২০২১ ১৯:৫১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টিকার আওতায় ঈশ্বরদী ইপিজেড শ্রমিকরা

স্বাস্থ্য সুরক্ষা শতভাগ নিশ্চিত করতে এবার করোনা টিকার আওতায় আসলেন ঈশ্বরদী ইপিজেডে কর্মরত শ্রমিকগণ। আজ মঙ্গলবার সকালে পাবনা সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী টিকা প্রদান কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা (বেপজা) ও পাবনা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের উদ্যোগে টিকা প্রদানের এ কার্যকম শুরু হলো।

টিকা প্রদানের প্রথম দিন ইপিজেডের বিভিন্ন কম্পানিতে কর্মরত ৫০০ দেশি শ্রমিককে চায়নার সিনোফার্মের টিকা প্রদান করা হয়েছে। ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা চিকিৎসক এফ এ আসমা খান কালের কণ্ঠকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ঈশ্বরদী ইপিজেডের মহাব্যবস্থাপক আব্দুল্লাহ আল মাহবুবের সভাপতিত্বে টিকা প্রদান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে পাবনা সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসেবে ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পি এম ইমরুল কায়েস, ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবির, ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার এফ এ আসমা খানসহ ইপিজেডের বিভিন্ন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা চিকিৎসক এফ এ আসমা খান কালের কণ্ঠকে জানান, এর পূর্বে ঈশ্বরদী ইপিজেডে কর্মরত বিদেশিদের করোনা টিকার আওতায় আনা হয়। এবার ঈশ্বরদীর ইপিজেডের বিভিন্ন কম্পানির শ্রমিকদের টিকা প্রদান করা হচ্ছে।

চিকিৎসক আসমা খান আরো জানান, প্রথম পর্যায়ে ইপিজেডের ৫ হাজার শ্রমিক টিকা গ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। যাদের প্রত্যেকের বয়স ২৫ বছরের ওপর। ইপিজেডে ১৩ হাজার শ্রমিক রয়েছেন। তাদের প্রত্যেককে পর্যায়ক্রমে টিকা প্রদানের পরিকল্পনা রয়েছে।

পাবনা সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী মুঠোফোনে কালের কণ্ঠকে জানান, দেশের শিল্প-কলকারখানার শ্রমিকরা উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত। তাদের শতভাগ স্বাস্থ্য সুরক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে করোনা টিকার আওতায় আনতে টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। ঈশ্বরদী ইপিজেডের সকল শ্রমিককে পর্যায়ক্রমে টিকা প্রদান করা হবে।

ঈশ্বরদী ইপিজেডের মহাব্যবস্থাপক আব্দুল্লাহ আল মাহবুব কালের কণ্ঠকে জানান, দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন শিল্প-কলকারখানা শ্রমিকরা। শ্রমিকরা শিল্প-কলকারখানার দৈনন্দিন উৎপাদন কার্যক্রমের সঙ্গে সরাসরি জড়িত। দেশের রপ্তানি আয় বৃদ্ধিতে শ্রমিকরা সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন।

মহাব্যবস্থাপক আব্দুল্লাহ আল মাহবুব আরো জানান, বৈশ্বিক করোনা মহামারির মধ্যেও ঈশ্বরদী ইপিজেডের কল-কারখানাগুলো লকডাউন দেওয়া হয়নি। শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য মাস্ক পরিধান, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার, পায়ে জীবাণুনাশক স্প্রে, গেটে তাপমাত্রা পরিমাপ করা হয়েছে। কোনো শ্রমিকের উপসর্গ দেখা গেলেই তাদের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। ইপিজেডে জাপানি তোয়া কম্পানি নিজ খরচে শ্রমিকদের করোনা পরীক্ষা করছে।

মহাব্যবস্থাপক আরো জানান, বর্তমানে ঈশ্বরদী ইপিজেডে ২০ কম্পানি দৈনন্দিন উৎপাদন চালিয়ে যাচ্ছে। কম্পানিগুলোতে শুধুমাত্র ১৩ হাজার দেশি শ্রমিক কর্মরত। তাদের সবাইকে শতভাগ করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে টিকা প্রদান শুরু করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সকল শ্রমিককে টিকা প্রদান করা হবে।



সাতদিনের সেরা