kalerkantho

শুক্রবার । ৬ কার্তিক ১৪২৮। ২২ অক্টোবর ২০২১। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

পিতার মৃত্যুশোকে জ্ঞান হারিয়ে ৪ ঘণ্টা পর পুত্রের মৃত্যু

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৩ আগস্ট, ২০২১ ১৭:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পিতার মৃত্যুশোকে জ্ঞান হারিয়ে ৪ ঘণ্টা পর পুত্রের মৃত্যু

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সিলেট একটি বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়নের মথুরাপুর গ্রামের গোলাম কিবরিয়া ওরফে দিলু মাস্টার। বাবার মৃত্যুর শোকে চার ঘণ্টার ব্যবধানে ছেলে মো. রুবেল মিয়াও হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

রবিবার (২২ আগস্ট) দিবাগত রাত সাড়ে ১০টায় মারা যান বাবা ও একই রাত আড়াইটায় মৃত্যুবরণ করেন ছেলে রুবল মিয়া। সংবাদটি জানাজানি হলে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দিলু মাস্টার হৃদরোগে আক্রান্ত হলে ছেলে রুবেল মিয়া পিতাকে সিলেটের একটি হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে রবিবার রাতে পিতার মৃত্যু হলে রাত আড়াইটায় অ্যাম্বুলেন্স করে পিতার লাশ বাড়িতে নিয়ে আসেন ছেলে রুবেল মিয়া। বাড়িতে আসার পর অতিশোকে কান্নাকাটি করতে করতে চার ঘণ্টা পর তিনিও অজ্ঞান হয়ে যান। দীর্ঘক্ষণ পরেও আর জ্ঞান ফেরেনি। তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে। ততক্ষণে ছেলে রুবেল মিয়া চলে যান না ফেরার দেশে।

স্থানীয় বাসিন্দা ও এনজিও কর্মকর্তা ইকবাল আহমেদ বলেন, দিলু স্যার ভাদগুড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক হিসেবে দীর্ঘদিন সুনামের সহিত শিক্ষকতা করেছেন। ছোট বেলায় প্রাইভেট পড়েছি স্যারের কাছে। তিনি খুব ভালো মানুষ ছিলেন। এক কথায় সাদা মনের মানুষ।

স্থানীয় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফয়জুল ইসলাম ফজল বলেন, বাবা-ছেলের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।



সাতদিনের সেরা