kalerkantho

শুক্রবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৮। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৬ সফর ১৪৪৩

'বঙ্গবন্ধু হত্যায় দলীয় নেতারা জড়িত থাকলে নাম প্রকাশ করা উচিত'

‌নিজস্ব প্রদিবেদক, ব‌রিশাল   

১৮ আগস্ট, ২০২১ ১৮:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'বঙ্গবন্ধু হত্যায় দলীয় নেতারা জড়িত থাকলে নাম প্রকাশ করা উচিত'

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, 'বঙ্গবন্ধুকে রক্ষা করতে না পারা বাঙালি জাতির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা। সেদিন পলিটিক্যাল উইং, গোয়েন্দা সংস্থা কেন আগাম তথ্য দিতে পারেনি এ রকম একটি ষড়যন্ত্র হতে যাচ্ছে। তাহলে কি তারা নাকে তেল দিয়ে ঘুমাচ্ছিলেন। এটা আমার নয়, আজ গোটা জাতির এই প্রশ্ন। সেদিন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ যদি সুসংগঠিত থাকত তাহলে ষড়যন্ত্রকারীরা বঙ্গবন্ধুকে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করতে পারত না। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে আওয়ামী লীগের নেতারা যদি জড়িত থাকেন তাদের নামও জাতির সামনে প্রকাশ করা উচিত।'

আজ বুধবার বরিশালের এক‌টি কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ‌তি‌নি এ কথা ব‌লেন। মৎস্য বিজ উৎপাদন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ইউনিয়ন পর্যায়ে মাছ চাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ, ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্পের আওতায় বিভাগীয় মূল্যায়ন কর্মশালায় অনুষ্টিত হয়। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন বিভাগীয় কমিশনার মো. সাইফুল হাসান বাদল।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে রক্ষা না করার ব্যর্থতার দায় নিজ দলেরও নিতে হবে। সে সময়কার আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী নেতাদের ইতিহাসের কাঠগড়ায় জবাব দিতে হবে।

তিনি কর্মশালায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে। তবে সঠিকভাবে নদী ড্রেজিং না হওয়ায় ও পরিবেশ নষ্ট হওয়ায় আগে নদীর যেসব এলাকায় ইলিশ পাওয়া যেত, সেসব এলাকায় এখন আর পাওয়া যাচ্ছে না। এসব বিষয়ে নানান পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা রাখেন জেলা প্রশাসক বরিশাল জসীম উদ্দীন হায়দার, পরিচালক রিজার্ভ মৎস্য অধিদপ্তর ঢাকা আজিজুল হক, প্রকল্প পরিচালক ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্যচাষ প্রযুক্তিসেবা সম্পসারণ প্রকল্প (দ্বিতীয় পর্যায়) মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, উপপরিচালক মৎস্য অধিদপ্তর বরিশাল বিভাগ আনিছুর রহমান তালুকদার।



সাতদিনের সেরা