kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১।৮ সফর ১৪৪৩

তিস্তার পানি ফের বিপৎসীমার ওপরে

নীলফামারী প্রতিনিধি   

১৫ আগস্ট, ২০২১ ১৭:১৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তিস্তার পানি ফের বিপৎসীমার ওপরে

ফাইল ছবি।

নীলফামারীতে এক দিনের ব্যবধানে তিস্তার পানি ফের বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে। রবিবার বেলা ৩টায় ডালিয়ায় তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে নদীর পানি বিপৎসীমা ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

গত তিন দিন ধরে তিস্তার পানি বাড়া-কমায় বিপাকে পড়েছে জেলার ডিমলা উপজেলার পূর্বছাতনাই, খগাখড়িবাড়ি, টেপাখড়িবাড়ি, খালিশা চাপানী, ঝুনাগাছ চাপানী ও গয়াবাড়ি ইউনিয়নের ১৫টি চর গ্রামের পাঁচ সহস্রাধিক পরিবার। এসব পরিবারের বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করায় ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবন। 

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, রবিবার তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে নদীর পানি সকাল ৬টায় বিপৎসীমার দুই সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়ে বেলা ৯টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকে। বেলা ১২টায় বিপৎসীমা অতিক্রম করে আট সেন্টিমিটার এবং বিকাল ৩টায় ১০ ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

ওই পয়েন্টে নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করে গত শুক্রবার। সেদিন সকাল ৬টায় বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হলে বেলা ১২টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকে। এরপর কিছুটা কমে বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। রাতে বিপৎসীমার নিচে নেমে শনিবার সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার, বেলা ১২টায় কিছুটা বেড়ে সাত সেন্টিমিটার এবং বিকাল ৩টায় চার সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। ওই পয়েন্টে নদীর পানির বিপৎসীমা ৫২ দশমিক ৬০ সেন্টিমিটার।

এর আগে চলতি বছরের ৯ জুলাই তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করে ৩০ সেন্টিমিটার ওপরে ওঠে। এরপর পানি কমলে এক মাসের বিরতির পর ফের বিপৎসীমার ওপরে পানি ওঠা-নামা করতে শুরু করে।

ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান বলেন, 'শুক্রবার নদীর পানি বিপৎসীমা অক্রিম করায় ইউনিয়নের ঝাড়সিংহেরশ্বর ও পূর্ব ছাতনাই গ্রামের প্রায় এক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ে। শনিবার সকালে কিছুটা কমলেও বিকেলে বাড়তে শুরু করেছে। রবিবার ফের বিপৎসীমা অতিক্রম করায় স্বাভাবিক জীবন ব্যহত হচ্ছে উপজেলার তিস্তাবেষ্টিত ১৫টি চর গ্রামের বাসিন্দা।'

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসফাউদদৌলা বলেন, 'উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। রবিবার বেলা ৩টায় তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হতে শুরু করে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ব্যারাজের সব কটি (৪৪) জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে।'



সাতদিনের সেরা