kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

ইডা কুনু সিস্টেম অইল!

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি    

৮ আগস্ট, ২০২১ ০২:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইডা কুনু সিস্টেম অইল!

'ইডা কুনু সিস্টেম অইল! বেইন্নালা থেইক্কা খাড়াই রইছি, অহনও টিহাডা পাইলাম না। আর পাইয়াম কি না হিডাও জানি না।' এমনটাই বলেছিলেন টিকা নিতে আসা এক বৃদ্ধা নারী।

সারা দেশের মতো ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে গণটিকাদান ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। 

শনিবার (৭ আগস্ট) উপজেলার ২১টি ইউনিয়নের ২৮টি কেন্দ্রে ১৪ হাজার ৫৩০ জনকে টিকা দেওয়া হয়। প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। ভ্যাকসিন সরবরাহের তুলনায় লোকজনের উপস্থিতি চার থেকে পাঁচ গুণ। পুরুষের তুলনায় নারীদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো।
 
সরেজমিনে দেখা যায়, দীর্ঘ ভোগান্তির পর টিকা পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন টিকাগ্রহীতারা। তবে সারা দিন লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও টিকা না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

রসুল্লাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রে টিকা নিতে আসা জজ মিয়া (৫৫) বলেন, 'আমি সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত  লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলাম। কিন্তু টিকা পাইনি। আমার মতো আরো অনেক লোক টিকা না পেয়ে বাড়ি ফিরে গেছে।'

রসুল্লাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলী আকবর বলেন, আমরা মাত্র ৬০০ টিকা পেয়েছি; কিন্তু এখানে প্রায় তিন হাজার লোক হাজির হয়েছে। এ ক্ষেত্রে আমরা বয়স্ক, নারী, প্রতিবন্ধী, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রাধান্য দিয়েছি।
 
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একরামুল সিদ্দিক বলেন, 'নবীনগরে ২১ ইউনিয়নের ২৮টি কেন্দ্রে একযোগে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়া চলমান থাকবে। টিকার কোনো সংকট নেই। টিকার এই ধরনের চালান কয়েক দিনের মধ্যে আবার আসবে। করোনা মহামারি মোকাবেলায় সবাইকে একটু ধৈর্য ধারণ করার আহ্বান করছি।'



সাতদিনের সেরা