kalerkantho

শুক্রবার । ২ আশ্বিন ১৪২৮। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ৯ সফর ১৪৪৩

ধুনটে যমুনা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ভাঙন (ভিডিও)

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

৫ আগস্ট, ২০২১ ২০:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধুনটে যমুনা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ভাঙন (ভিডিও)

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় যমুনা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ২০ মিটার অংশ ভেঙে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে পানির প্রবল স্রোতে বানিয়াজান গ্রামের কাছে এই স্পারে ভাঙন শুরু হয়।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নে প্রতিবছর ভয়াবহ ভাঙনে যমুনা নদীতীরবর্তী গ্রামের বসতভিটা, আবাদি জমি, রাস্তাঘাট ও প্রতিষ্ঠানসহ অনেক অবকাঠামো নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এ কারণে ২০০৩ সালে বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) যমুনা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ রক্ষায় প্রায় ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে বানিয়াজান গ্রামের কাছে একটি স্পার নির্মাণ করে।

নদীর পানি অনেক দুর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাধ ছিল ঝুঁকিমুক্ত। এ অবস্থায় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে ওই স্পারের অগ্রভাগে প্রায় ২০ মিটার মাটির অংশ ভেঙে নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে।

সরেজমিন দেখা যায়, যমুনা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভাঙনরোধে নির্মিত স্পারের দুই পাশে স্লোপ করে জিও চট বিছানো হয়। তার ওপর দিয়ে ইট সিমেন্টের তৈরি বোল্ডার বসানো হয়। তবে প্রবল স্রোতে জিও চট এবং বোল্ডার নদী মাঝে বিলীন হয়ে গেছে। খবর পেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ হাবিবর রহমান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার মহন্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুল করিম বলেন, বর্তমানে যমুনা নদীতে স্রোত বৃদ্ধি পেয়েছে। এ কারণে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ রক্ষার স্পারে ভাঙন দেখা দিয়েছে। জরুরিভাবে ভাঙনের স্থান মেরামত না করা হলে স্রোতে সম্পূর্ণ অংশই নদীতে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পাউবো কর্মকর্তাদের জরুরিভাবে ভাঙনরোধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপসহকারী প্রকৌশলী আসাদুল হক বলেন, যমুনা নদীর স্পারের প্রায় ২০ মিটার অংশ ভেঙে বিলীন হয়ে গেছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে ভাঙনের স্থান মেরামতের কাজ শুরু করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা