kalerkantho

শনিবার । ১০ আশ্বিন ১৪২৮। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৭ সফর ১৪৪৩

পানিবন্দি মানুষের ডেঙ্গু শঙ্কা

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

৪ আগস্ট, ২০২১ ১৭:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পানিবন্দি মানুষের ডেঙ্গু শঙ্কা

যশোরের কেশবপুরে গত সাতদিন পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে শতাধিক পরিবার। বৃষ্টির পানি নিষ্কাশিত হতে না পেরে উপজেলার মধ্যকুল গ্রামের উত্তরপাড়ার মানুষের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। স্বাস্থ্য বিভাগ ধারণা করছে, পানিবন্দি এলাকাগুলোতে ডেঙ্গুর প্রভাব বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।

জানা যায়, অপরিকল্পিত মাছের ঘেরের কারণে পানি নিষ্কাশিত হতে না পারায় পানি বৃদ্ধি পেয়ে মানুষের বাড়ি ঘরে উঠে এসেছে। প্রায় শতাধিক পরিবার গত সাতদিন পানিতে আটকে আছে। তবে পানি নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা করা হয়নি।

গৃহবধূ রিমা খাতুন বলেন, পানি তাদের রান্নাঘরে ঢুকে পড়ায় বড় ঘরের বারান্দায় আলো চুলা তৈরি করে রান্না করতে হচ্ছে। 

শিক্ষক হাফেজ গোলাম মোস্তফা বলেন, তার প্রতিষ্ঠানের পাশ দিয়ে যশোর-চুকনগর সড়কের একটি কালভার্ট দিয়ে পানি বের হয়ে যেতো। কিন্তু সেটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পানি বের হতে না পারায় বেশি সমস্যা হচ্ছে।

ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন বলেন, বৃষ্টির পানি বের হতে না পেরে ওই এলাকার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আলমগীর হোসেন বলেন, পানিবন্দি এলাকায় ডেঙ্গুর পাশাপাশি পানিবাহিত রোগ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম এম আরাফাত হোসেন বলেন, খবর পেয়ে এলাকা পরিদর্শন করা হয়েছে। সড়ক ও জনপদ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে দ্রুত পূর্বে যেখানে কালভার্ট সেখান থেকেই পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

সড়ক ও জনপদ বিভাগ যশোরের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, যে স্থান দিয়ে ওই এলাকার পানি নিষ্কাশিত হতো সেটি আগে থেকেই নষ্ট হয়ে ছিল। দ্রুত ওই স্থানে একটি স্টিলের পাইপ স্থাপন করে পানি নিষ্কাশনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা