kalerkantho

বুধবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৮। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২১ সফর ১৪৪৩

ঈশ্বরদীতে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

৩ আগস্ট, ২০২১ ২১:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঈশ্বরদীতে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

দলীয় গ্রুপিংয়ে দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের ওপর হামলার প্রস্তুতিকালে সংবাদ পেয়ে পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেছে বিপুল সংখ্যক দেশীয় ধারালো অস্ত্র। সোমবার রাতে ঈশ্বরদীর সাঁড়া ইউনিয়নের ঝাউদিয়া চানমারিমোড় থেকে অস্ত্রগুলো উদ্ধার করা হয়। অস্ত্রগুলোর মধ্যে একটি রামদা, তিনটে বড় ধারালো হাসুয়া, ১০-১২টি লোহার পাইপ, কাঠের বাটাম রয়েছে। তবে পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি। থানার ওসি এ বিষয়ে বলেছেন ভিন্ন কথা। যা অযৌক্তিক বলেও মনে করছেন চানমারি মোড়ের ব্যবসায়ীরা।

ঈশ্বরদীর সাঁড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, সাঁড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী নিয়ে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে গ্রুপিং চলছে। সোমবার সন্ধ্যায় এক গ্রুপের যুবলীগ সদস্য সোহাগের ওপর হামলা চালানোর জন্য প্রতিপক্ষ গ্রুপ প্রস্তুতি নেয়। হামলার প্রস্তুতিকারীরা নিজেদের পক্ষের লোকজনসহ ধারালো রামদা, হাসুয়া, লোহার জিআই পাইপ ও কাঠের বাদাম নিয়ে সাঁড়ার ঝাউদিয়া চানমারি মোড়ে অবস্থান নেয়। কারণ ওই মোড় দিয়ে সোহাগের যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মোড়ে আকস্মিকভাবে উগ্র স্বভাবের যুবকদের উপস্থিতির বিষয়টি মোড়ের ব্যবসায়ীদের নজরে আসে। এক পর্যায় তাদের নিয়ন্ত্রণে রামদা, হাসুয়া, লোহার পাইপ ও বাটাম থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে ব্যবসায়ীরা থানায় খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মোড়ের কামারশালার বন্ধ দোকানের পাশ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় দেশীয় ওইসব অস্ত্রগুলো উদ্ধার করে।

ঈশ্বরদী থানার ওসি আসাদুজ্জমান আসাদ জানান, ঘটনার সময় সাঁড়া ঝাউদিয়া চানমারি মোড়ের কামারশালায় কয়েক ব্যক্তি রামদা, হাসুয়া তৈরি করছে বলে খবর পান। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে কয়েক যুবক পুলিশের মোটর সাইকেল দেখতে পেয়ে কামারের দোকানঘরের পাশে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। বস্তার মধ্যে রামদা, হাসুয়া, লোহার পাইপ ও বাটাম পাওয়া গেছে। ওই সময় কামারের দোকান বন্ধ ছিল। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। কেউ লিখিত অভিযোগও দায়ের করেনি। তবে ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত তা উৎঘাটনের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

এ ঘটনায় সাঁড়া ঝাউদিয়া চানমারি মোড়সহ ঈশ্বরদীতে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। তবে পুলিশ সতর্ক রয়েছে বলেও থানা সূত্রে জানা গেছে।



সাতদিনের সেরা