kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

পার্বতীপুরে মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের হামলায় সংবাদ কর্মী আহত

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

৩ আগস্ট, ২০২১ ১৪:৩৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পার্বতীপুরে মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের হামলায় সংবাদ কর্মী আহত

পার্বতীপুরে সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়েছেন এক সংবাদ কর্মী। তাদের হামলার ভয়ে অপর এক সংবাদ কর্মীসহ এলাকার বেশ কিছু লোক এখন গ্রামছাড়া। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সোমবার রাত আনুমানিক ৯টার দিকে উপজেলার মন্মথপুর ইউনিয়নের দাগলাগঞ্জ বাজার এলাকায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দাগলাগঞ্জের কুখ্যাত মাদক কারবারি কাজী আমিনুল ইসলাম (মিন্টু কাজী) ও তার চাচাতো ভাই কাজী এরশাদ গতকাল সোমবার রাত আনুমানিক ৯টার দিকে গণমাধ্যম কর্মী মোরসালিম বাবলার ওপর হামলা চালায়। লোহার রডের আঘাতে মোরসালিনের মাথা ফাটিয়ে দেয়। 

তাদের উপর্যুপরি আঘাতে একটি হাত ও একটি পায়ের হাড় ভেঙে যায়। এরপর হামলাকারীরা মারতে মারতে বাজারের ভেতর দিয়ে নান্নু কাজীর বাসায় (মিন্টু কাজীর আপন ভাইয়ের বাসা) নিয়ে আটকে রেখে সেখানে আরও মারপিট করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানায়, হামলাকারীরা এতই মারমুখী ছিল যে, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ দল আসলেও তারা ক্ষান্ত হয়নি। একটি অটোরিক্সায় করে মোরসালিনকে হাসপাতালে প্রেরণ করার ৫ মিনিট পরেই মিন্টু কাজীর ভাই নান্নু কাজী ও নজরুল কাজী মোরসালিনকে বহনকারী অটোরিক্সাটি আটক করে। হাসপাতালে নিতে বাধা প্রদান করে এবং মামলা না করার জন্য হুমকি দেয়।

আহত মোরসালিন ও প্রত্যক্ষদর্শী কাজী রুবেল জানায়, সম্প্রতি গাঁজা বিক্রয়কালে মিন্টু কাজী পুলিশের হাতে আটক হয়। তাকে আদালতে প্রেরণ করার পরের দিনই জামিনে মুক্তি পায় সে। তাকে ধরিয়ে দেয়ার ব্যাপারে সংবাদ কর্মী মোরসালিন, স্বপন চন্দ্র, মোকন চন্দ্র সাধুকে সন্দেহ করে মিন্টু কাজী। জামিনে এসে মিন্টু কাজী বিভিন্ন সময়ে লোক সমাজে মারপিট করার হুমকি প্রদান করে। 

বেহারাপাড়া গ্রামের নিতাই চন্দ্র জানায়, মোরসালিনকে মারার পর পরই তার বাবা মোকন সাধুকেও মারতে লোহার রড নিয়ে তাদের বাসায় যায় মিন্টু কাজী। তন্ন তন্ন করে গোটা বাড়িতে তল্লাশী চালানো হয় এ সময়। নিতাই জানায়, বাবা বর্তমানে বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। মিন্টু কাজী তার বিরুদ্ধে কোন সাক্ষী না দিতে হুমকি দেয়।

সংবাদ কর্মী স্বপন চন্দ্রও ভয়ে রাস্তাঘাটে বের হতে পারছেন না। এদিকে হামলার প্রায় ১৫ ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও অপরাধীদের কাউকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। মিন্টু কাজীকে আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টায় দাগলাগঞ্জ বাজারে ঘুরে বেড়াতে দেখেছে প্রত্যক্ষদর্শীরা।

এ বিষয়ে পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইন্চার্জ জাফর ইমাম এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, থানায় মামলা হয়নি। তবে অপরাধীদের গ্রেপ্তারে একাধিক ফোর্সকে মাঠে নামানো হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মঙ্গলবারর বেলা ২ টায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।



সাতদিনের সেরা