kalerkantho

শুক্রবার । ২ আশ্বিন ১৪২৮। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ৯ সফর ১৪৪৩

সরিষাবাড়ীতে মানসিক প্রতিবন্ধীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, আটক ১

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি   

৩ আগস্ট, ২০২১ ০৫:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সরিষাবাড়ীতে মানসিক প্রতিবন্ধীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, আটক ১

গাছে বেঁধে নির্যাতন করা হয় মানসিক প্রতিবন্ধী জালেক মিয়াকে।

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে চোর সন্দেহে জালেক মিয়া (৫০) নামে এক মানসিক প্রতিবন্ধীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। গত রবিবার রাতে উপজেলার পারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভাটারা ইউনিয়নের পারপাড়া গ্রামের বাসিন্দা জালেক মিয়া। সে দীর্ঘদিন ধরে মানসিক রোগে ভুগছেন। অনেক সময় রাস্তা দিয়ে চলাচলের সময় অন্যের ঘর-বাড়িতে লাঠিসোটা দিয়ে হঠাৎ পিটুনি দিত। রবিবার রাতে প্রতিবেশী সুজা মিয়ার বাড়ির পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন।

এ সময় সুজা মিয়া, তার ছেলে আইনাল হক চোর চোর বলে চিৎকার করতে থাকেন। পরে জালেক মিয়াকে ধরে স্থানীয় এক মুদির দোকানের পাশে মেহগনি গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে সুজা মিয়া তার ছেলে আইনাল হক ও পরিবারের লোকজন তাকে মারধর করে।

এদিকে ঘটনা ধামাচাপা দিতে রাতেই স্থানীয় আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে সালিস বসানো হয়। সালিসিতেও জালেক মিয়াকে উল্টো আরো মারধর করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ সোমবার (২ আগস্ট) বিকালে পারপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত সুজা মিয়ার ছেলে আইনাল হককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এ সময় সুজা মিয়া পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর রকিবুল হক কালের কণ্ঠকে বলেন, চোর সন্দেহ এনে মানসিক প্রতিবন্ধী একজনকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে বলে সংবাদ পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত একজনকে আটক করেছে। তদন্ত করে ঘটনার সঙ্গে আরো যারা জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় নেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা