kalerkantho

শনিবার । ১০ আশ্বিন ১৪২৮। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৭ সফর ১৪৪৩

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য

অনলাইন ডেস্ক   

২ আগস্ট, ২০২১ ২০:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য

গত ১৫ জুলাই কালের কণ্ঠ অনলাইনে ‘‘কালীগঞ্জে বিধি নিষেধ না মেনেই চলছে পশুর হাট’’ সংবাদ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত উল্লেখ করে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ করেছেন হাট কমিটির পক্ষে কাজী রোবাইতুল ইসলাম তপন। প্রতিবাদ পত্রে জেলা প্রশাসক ও কলীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জড়িয়ে মিথ্যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন।

প্রতিবেদকের বক্তব্য : গত ১৫ জুলাই সারা দেশে কঠোর লকডাউন চলছিল। সে সময় পশু হাট পরিচালনা করার বিষয়ে সরকারি নিষেধাজ্ঞা ছিল। পশুহাটটি ইজাদারের পক্ষে কাজী রোবাইতুল ইসলাম তপন আইন অমান্য করে সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত পশুহাট পরিচালনা করেন। এ সময় তিনি পত্রিকায় না লেখার জন্য সংবাদ কর্মীদের টাকা দেওয়ার কথাও বলেন।

আলাপকালে ইউএনওসহ পদস্থ কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে হাট পরিচালনা করছেন বলে সাংবাদিকদের জানান। যার অডিও রেকর্ড ও পশু হাটের ছবিনজ ভিডিও ফুটেজ আছে। লকডাউনে পশুহাট চলানোর উক্ত সংবাদ ১৬ জুলাই স্থানীয় দৈনিকেও প্রকাশিত হয়। কালের কণ্ঠে পাঠানো প্রতিবাদ পত্রে তিনি আইন ভেঙে পশুহাট পরিচালনা করেছেন এ কথা এড়িয়ে শুধু সংবাদটি সঠিক নয় বলে দাবি করেছেন।

এ ছাড়া গত ১৬ জুলাই সাকালে উক্ত প্রতিবাদ কারি এ প্রতিবেদকের কাছে ফোন করে নিজেকে একটি অনলাই পোর্টালের সাংবাদিক ও স্থানীয় সাংবাদিক নেতা পরিচয় দিয়ে বলেন, ইজাদারকে পশু হাট ইজারা নিতে ৩০/৩২ লাখ টাকা লেগেছে। দীর্ঘদিন লকডাউন চলায় হাটে লোকসান হচ্ছে। মৌখিকভাবে সরকারি কর্মকর্তাসহ স্থানীয় লোকজন ম্যানেজ করে লকডাউনের মধ্যেও পশু হাটে গরু ছাগল কোনা বেচা চলে। এক পর্যায়ে তিনি গত ১৫ জুলাই পশু হাট পরিচালনায় নিয়ম মানা হয়নি স্বীকার করে বলেন, সে সময় ইউএনওর বিষয়টি পত্রিকায় আসায় তার একটু সমস্যা হয়েছে। এজন্য তিনি পত্রিকায় একটি প্রতিবাদ লিপি পাঠিয়েছেন। বিষয়টি ভিন্নভাবে না নেওয়ারও অনুরোধ করেন তিনি।



সাতদিনের সেরা