kalerkantho

শনিবার । ১০ আশ্বিন ১৪২৮। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৭ সফর ১৪৪৩

বোচাগঞ্জে সুগার মিলের সিডিএ‘র আত্মহত্যা

ভাইয়ের দাবী করোনার কারণে

বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি    

১ আগস্ট, ২০২১ ১৭:৩৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বোচাগঞ্জে  সুগার মিলের সিডিএ‘র আত্মহত্যা

বালু চুরির অভিযোগে মামলার আসামী হওয়াসহ সাময়িক বরখাস্তের বিষয় সইতে না পেরে  সেতাবগঞ্জ চিনিকলের এক ইক্ষু উন্নয়ন সহকারী কর্মকতা ( সিডিএ)গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেছেন। নিহত মজেন্দ্র নাথ দেবশর্ম্মা (৫৫) বোচাগঞ্জ উপজেলার ৬নং রনগাঁও ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামেমের মৃত দলিরাম দেবশর্ম্মার ছেলে।  গতকাল শনিবার দিবাগত রাত ১২ টার সময় গোবিন্দপুর নিজ বাড়ীতে কাঁঠাল গাছে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেন তিনি।

তার বড় ভাইয়ের দাবী করোনার কারণে তার ভাই আত্নহত্যা করেছে। পুলিশ ও এলাকাবাসীর দাবী বালু চুরির মামলা ও চাকুরি হারানোর কারণে রোক লজ্জায় তিনি আত্নহত্যা করেছেন।

পুলিশ জানায়, নিহতের স্ত্রী রাত ১২ টার দিকে ঘুম ভেঙ্গে দেখেন স্বামী বিছানায় নেই। বাড়ীর ভিতরে কথাও খুঁজে না পেয়ে তিনি আঙ্গিনায় বেরিয়ে আসেন। এ সময় তিনি কাঁঠাল গাছে স্বামীর ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। লাশ দেখে চিৎকার করলে বাড়ী লোকজন বেরিয়ে আসে। বোচাগঞ্জ থানায় খবর দিলে পুলিশ আজ রবিবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ মর্গে প্রেরণ করে।

এরাকাবাসী জানান, মজেন্দ্র নাথ দেবশর্ম্মা সেতাবগঞ্জ সুগার মিলে ইক্ষু উন্নয়ন সহকারী কর্মকর্তা হিসেবে চাকুরি করতেন। তিনি বনগাঁ খামারে খামার ইনচার্জের দায়িত্বে ছিলেন। সম্প্রতি সেখান থেকে প্রায় দুই হাজার ট্রলি বালু ও মাটি চুরি হয়ে যায়। এ ঘটনায় গত ২৮ জুলাই সেতাবগঞ্জ সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) বাদি হয়ে তাকে সহ ৬ জনকে আসামী করে বোচাগঞ্জ থানায়  মামলা দায়ের করেন। একই সঙ্গে মজেন্দ্র নাথ দেবশর্ম্মাকে চাকুরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করেন। এতে মজেন্দ্র নাথ দেবশর্ম্মা মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েন। বালু চুরির ঘটনায় মামলা ও চাকুরি থেকে বরখাস্তের বিষয়টি তিনি মেনে নিতে পারেননি। হয়তো এই অপবাদ ও লোক লজ্জার ভয়ে লোকচক্ষুর আড়ালে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নিহতের বড় ভাই শিক্ষক গজেন্দ্র নাথ দেব শর্ম্মা  ভাইয়ের আত্নহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমার ছোট ভাই মজেন্দ্র নাথ দেবশর্ম্মা করোনা পজিটিভ ছিল। সে গত ১৪ জুলাই করোনা পজিটিভ হয়। আজ রবিবার দ্বিতীয় বারের মত তার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেওয়ার কথা ছিল। তার আগেই সে আত্নহত্যা করল। 

আত্নত্যার কারণ কি জানতে চাইলে তিনি বলেন, বালু চুরির মামলা ও চাকুরি থেকে বরখাস্তের বিষয় নয়,করোনার কারণে আমার ভাই আত্নহত্যা করেছে। করোনার বিষয়টি মূখ্য, বালু চুরির মামলা ও চাকুরি থেকে  বরখাস্তের বিষয়টি গৌন। বোচাগঞ্জ থানার ওসি মাহামুদুল হাসান আত্নহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,তদন্ত চলমান রয়েছে। তদন্ত হলে জানা যাবে ঠিক কি কারণে তিনি আত্নহত্যা করেছেন।



সাতদিনের সেরা