kalerkantho

শুক্রবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৮। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৬ সফর ১৪৪৩

'গরিব মানুষ, কাম গেলে গা কিভাবে চলমু'

শেরপুর প্রতিনিধি   

৩১ জুলাই, ২০২১ ১৯:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'গরিব মানুষ, কাম গেলে গা কিভাবে চলমু'

শ্রীবরদী উপজেলার সগুনা গ্রামের জাহানারা বেগম (২০) নামে এক গার্মেন্টকর্মী জানান, ঈদ আর লকডাউনের কারণে গার্মেন্ট বন্ধ ছিল। আগামীকাল খুলবে তার কারখানা। এজন্য ছোট বোন জান্নাত আরাকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়েছেন। যাবেন উত্তরার দক্ষিণখান। বাড়ি থেকে শ্রীবরদী পৌর শহরে আসতে ২০ টাকার ভ্যানভাড়া গুনতে হয়েছে ৫০ টাকা। সেখান থেকে শেরপুর শহরে আসতে ভ্যানভাড়া দিতে হয়েছে ৪০ টাকার স্থলে ১০০ টাকা করে। শেরপুর থেকে নকলা, ফুলপুর, ময়মনসিংহ, গাজীপুর হয়ে ঢাকায় যেতে হবে।

আজ শনিবার বিকেলে শহরের নবীনগর এলাকায় তাজ সিএনজি ফিলিং স্টেশনের সামনে গাড়ির অপেক্ষায় থাকা এ গার্মেন্টকর্মী এসব কথা বলেন। তিনি জানান, এভাবে কতবার গাড়ি বদলাতে হবে? ভাড়া কতগুণ বেশি দিতে হবে? গাড়ি পাব কি না? এসব অজানা। এ সময় জাহানারার চোখে মুখে যেন অমানিশার ছায়া।

শুধু জাহানারা নয়। তার মতো শতশত নারী-পুরুষ আর উঠতি বয়সের যুবক-যুবতীরা ছুটছেন ঢাকামুখি গন্তব্যে। নিজের এলাকাতেই পড়তে হচ্ছে এমন চরম বিড়ম্বনায়। চরম ভোগান্তির শিকার গন্তব্যের পানে ছুটে চলা এসব লোকজনের প্রশ্ন একটাই ঢাকায় যামু ক্যামনে?

শহরের খোয়ারপাড়, তিনানাী বাজার, অস্টমীতলা, নবীনগর এলাকায় বাস ছাড়া বিভিন্ন ধরনের ট্রাক-ইজিবাইকে কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীদের গাদাগাদি করে উঠাতে দেখা যায়। সদরের চরশেরপুর গ্রামের মো. সাঈফ মিয়া (২৯) বলেন, ঈদের ছুটিতে বাড়িতে আইছিলাম। যেভাবেই হোক আজই ঢাকায় পৌঁছাতে হবে। আগামীকাল (রবিবার) আমাদের কারখানা খুলবে। বাস বন্ধ। বাধ্য হয়ে ট্রাকে যাচ্ছি। ট্রাকে যাইতে ভাড়াও বেশি, কষ্টও বেশি। ভাড়া বেশি দিয়ে কষ্ট করে হলেও যাওন লাগবোই।

গার্মেন্টকর্মী পৌরশহরের উত্তর গৌরীপুর মহল্লার শ্যামলা বেগম বলেন, বাপের বাড়িতে ঈদের ছুটিতে আইছিলাম। ১ তারিখ থেকে অফিস করতে হবে তারজন্য গত রাতে অফিস থেকে ফোন দিছে। আগামীকাল সঠিক সময়ে অফিসে না যেতে পারলে চাকরি চলে যাবে। এখন কষ্ট করেই গ্রামের বাড়ি থেকে রওনা হয়েছি।

শহরের নবীনগর এলাকার রিকশাচালক তোফাজ্জল হোসেন বলেন, আমার মেয়ে টঙ্গির গাজীপুরারা একটি গার্মেন্টে কাম করে। শুক্রবার রাইতে ফোন দিছে, রবিবার সকালে কাজে যোগ দেওয়ার জন্য। মেয়েকে রাইতেই একটি পিকআপে তুলে দিয়েছি। গরিব মানুষ, কাম গেলে গা কিভাবে চলমু, তাই কষ্ট অইলেও মেয়েরে রাইতেই পাডাই দিছি।



সাতদিনের সেরা