kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধাকে ধর্ষণচেষ্টা, ৪ মাস পর অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি    

৩১ জুলাই, ২০২১ ১৩:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধাকে ধর্ষণচেষ্টা, ৪ মাস পর অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

কুড়িগ্রামের উলিপুরে ষাটোর্ধ্ব এক বৃদ্ধাকে ধর্ষণ চেষ্টার মামলায় অভিযুক্ত মুনসুর আলীকে (৬২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। দীর্ঘ চার মাস পর গত শুক্রবার (৩০ জুলাই) পুলিশ অভিযান চালিয়ে মুন্সিগঞ্জ কোট পাড়া এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক মুনসুর আলী ব্রহ্মপুত্র নদ বিচ্ছিন্ন উপজেলার সাহেবের আলগা ইউনিয়নের সীমানা লাগোয়া দুর্গম চরাঞ্চল গুজিমারী গ্রামের মৃত মজা শেখের পুত্র। 

জানা গেছে, গত ২২মার্চ (সোমবার) ওই গ্রামের ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধা নদীতে গোসল করতে যায়। এ সময় তাকে একা পেয়ে প্রতিবেশী চার সন্তানের জনক মুনসুর আলী (৬২) জোরপূর্বক জাপটে ধরে যৌন নিপীড়নের চেষ্টা চালান। অভিযুক্ত নির্যাতিতার দূর সম্পর্কে আত্মীয় হন। পরে ওই বৃদ্ধা বাড়িতে এসে তার স্বামীসহ পরিবারের লোকজনকে ঘটনাটি খুলে বলেন। এদিকে স্ত্রীর ওপর এরকম ঘটনা কোনভাবেই মেনে নিতে পারেননি বৃদ্ধার স্বামী নুরুল মুন্সি। এ ঘটনার পর থেকে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। ঘটনার এক সপ্তাহের মাথায় (মঙ্গলবার) হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা যান। নুরুল মুন্সির মৃত্যুতে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যে সৃষ্টি হলে কালের কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণে খবর প্রকাশ হয়। পরে উলিপুর থানা পুলিশ মুনসুর আলীর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেন। এ ঘটনার পর মুনসুর আলী গা ঢাকা দেন। দীর্ঘ ৪ মাস পর মুনসুর আলীর অবস্থান শনাক্ত করে মুন্সিগঞ্জ সদর থানা পুলিশের সহায়তায় উলিপুর থানা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। 

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সাহেবের আলগা পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ঘটনার পর থেকে মুনসুর আলী মুন্সিগঞ্জে আত্মগোপনে ছিলেন। দীর্ঘদিন অনুসন্ধান চালিয়ে আমরা তার অবস্থান জানতে পারি। শুক্রবার ভোররাতে কোট পাড়া এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

উলিপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন বলেন, শনিবার সকালে তাকে কুড়িগ্রাম জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা