kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১।৮ সফর ১৪৪৩

৯৯৯-এ কল করে বেঁচে গেল সাগরে ভাসমান ১৪ জেলে

উদ্ধার ফিশিং ট্রলার

সন্দ্বীপ (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৯৯৯-এ কল করে বেঁচে গেল সাগরে ভাসমান ১৪ জেলে

ইলিশের খোঁজে তিন দিন ধরে সাগরে ভাসছিল ট্রলার এফভি রেজিয়া-২। গত রবিবার ১৪ জন জেলে নিয়ে ভোলার তজমুদ্দিন থেকে ছেড়ে যায় ট্রলারটি বঙ্গোপসাগরে। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ায় বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে ভাসানচরের নিকটে ট্রলারটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে এদিক-ওদিক ভাসতে থাকে।

উত্তাল ঢেউয়ে উপায় না দেখে ট্রলার মাঝি ও বোট মালিক জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে সহযোগিতা চাইলে তাদের উদ্ধারে এগিয়ে আসে কোস্টগার্ড। বুধবার  বিকাল ৪টায় চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপের সারিকাইত ইউনিয়নের চৌকাতলী এলাকা থেকে আনুমানিক ৫ নটিক্যাল মাইল দক্ষিণে গিয়ে ১৪ জেলেকে অক্ষত অবস্থায় ফিশিংবোটসহ উদ্ধার করে কোস্টগার্ড।

কোস্টগার্ড চট্টগ্রাম পূর্ব জোনের সন্দ্বীপ উপজেলার সারিকাইত কন্টিনজেন্ট কমান্ডার সাজু আহামেদ জানান, '৯৯৯ নম্বর থেকে ফোন পেয়ে জানতে পারি সাগরে ১৪ জেলে বিপদে পড়েছে। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশে আমরা বোট নিয়ে তাদের উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি'।

উদ্ধার হওয়া জেলেরা হচ্ছেন- মাকসুদ মাঝি (৪০), ফারুক মিয়া (৬০), নাইম (২২), জাহাংগীর (৪৩), আলমগীর (৪২), আবুল হোসেন (৬০), হারুন (৪০), মোহসীন (৫৪), মঈন (৩০), জাহান (২৪), ইব্রাহিম (৩২), জাহাঙ্গীর (৩০), শাহজাহান (৫০), রাহিম (২২)। তারা ভোলা জেলার তজুমদ্দীন থানার সোনাপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ চাপরী গ্রামের বাসিন্দা।

কোস্টগার্ড সূত্রে জানা যায়, উদ্ধার হওয়া বোটসহ ১৪ জন জেলে তিন দিন আগে ভোলা জেলার তজুমদ্দিন ঘাট থেকে ইলিশ মাছ ধরতে বঙ্গোপসাগরে যায়। বুধবার সকালে ভাসানচর থেকে দক্ষিণ পশ্চিমে তাদের বোটের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। নিরুপায় হয়ে তারা ৯৯৯ নম্বরে সাহায্যের জন্য কল দেয়। খবর পেয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা খোঁজাখুঁজির পর তাদের দেখতে পায় কোস্টগার্ড। পরে রশি দিয়ে বিকল বোটটিকে টেনে তাদেরকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে সারিকাইত কন্টিজেন্টে নিয়ে আসা হয়।

উদ্ধার হওয়া বোটের মালিক মঈন উদ্দিন মাঝি জানান, 'সাগরে বোটের ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় আমরা বিপদে পড়ে যাই। পরে ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে কোস্টগার্ডের সঙ্গে কথা বলি। তারা আমাদের বোটসহ ১৪ জনকে নিরাপদে উদ্ধার করে'।



সাতদিনের সেরা