kalerkantho

বুধবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৮। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২১ সফর ১৪৪৩

সাগরে ভেসে যাওয়ার ৭ ঘণ্টা পর ভেসে উঠল যুবকের লাশ

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৬ জুলাই, ২০২১ ০১:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাগরে ভেসে যাওয়ার ৭ ঘণ্টা পর ভেসে উঠল যুবকের লাশ

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার ৭ ঘণ্টা পর ভেসে উঠল যুবকের লাশ। রবিবার (২৫ জুলাই) রাত ৮টার দিকে কুমিরা ঘাটঘর খালে তার লাশটি ভেসে উঠে। পুলিশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুমিরা ইউনিয়নের ছোটকুমিরা হিঙ্গোরীপাড়া গ্রামের ইসমাইলের ছেলে মো. নুর করিম (৩৭) প্রায় প্রতিদিনই সাগরে বরশি ফেলে ফাঙ্গাসসহ বিভিন্ন মাছ শিকার করতেন। এরই ধারাবাহিকতায় রবিবার দুপুর ১২টার দিকে তিনি বরশি নিয়ে মাছ ধরতে যান বড়কুমিরা-সন্দ্বীপ ফেরিঘাট এলাকায়। সেখানে কিছুক্ষণ বরশি ফেলার এক পযায়ে দুপুর ১টার দিকে তার বরশিটি পানির নিচে কোথাও আটকে যায়। এতে নুর করিম বরশিটি পানির নিচ থেকে ছাড়িয়ে আনার জন্য পানিতে নামলে জোয়ারের স্রোতে ভেসে যান।

খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। বিকালে একে একে উদ্ধার কাজে যোগ দেয় ডুবুরি দল, কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী। তবে তারা কয়েক ঘণ্টা চেষ্টা করেও তার কোনো সন্ধান মেলেনি। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উদ্ধার তৎপরতা স্থগিত করে সকল বাহিনীর সদস্যরা ফিরে যান। কিন্তু রাত আনুমানিক ৮টার দিকে ঘটনাস্থলের আনুমানিক দেড় শ গজ উত্তরে অবস্থিত খালে তার লাশটি ভেসে উঠে।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি মো. আবুল কালাম আজাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বরশি দিয়ে সাগরে মাছ ধরতে গেলে নুর করিমের বরশিটি পানিতে আটকে যায়। সে ‌ওই বরশি খুলতে পানিতে নামলে ভেসে যায়। এরপর কোস্টগার্ড, নৌবাহিনী, ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা দল উদ্ধার তৎপরতা চালালেও সন্ধ্যা পর্যন্ত তার কোনো হদিস মেলেনি। তবে রাত আনুমানিক ৮টার দিকে তার লাশটি ভেসে উঠে।

কুমিরা ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের কর্তব্যরত অফিসার মো. রাসেল রানা জানান, নুর করিম যখন পানিতে নেমে বরশিটি তোলার চেষ্টা করেন তখন ভরা জোয়ার। এ কারণে হয়তো স্রোতে ভেসে যান তিনি। তারপর আমাদের ডুবুরি দল অনেক চেষ্টা করেও তার কোনো হদিস পায়নি। সন্ধ্যা ৭টার দিকে ইউএনও মহোদয়ের নির্দেশে উদ্ধারকাজ আজকের মতো অভিযান স্থগতি করা হয়। আমরা ফিরে আসার পর লাশটি ভেসে উঠে।



সাতদিনের সেরা