kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

সড়কে ইজিবাইক রাখা নিয়ে দ্বন্দ্ব, হামলায় প্রাণ গেল যুবকের

কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি   

২৩ জুলাই, ২০২১ ২০:২৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সড়কে ইজিবাইক রাখা নিয়ে দ্বন্দ্ব, হামলায় প্রাণ গেল যুবকের

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় প্রতিপক্ষের হামলায় ইমরান হাসান বাবু (২২) নামে এক যুবক নিহত এবং এখলাছ মিয়া (৩০) নামে আরো একজন আহত হয়েছেন। তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত বাবু উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নের চেংজানা গ্রামের শামীম মিয়ার ছেলে।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নের সাহিতপুরবাজার এলাকায়। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ আটিগ্রামের রুকনউদ্দিনের ছেলে সুমনকে (২০) আটক করেছে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নের সাহিতপুরবাজার এলাকার রোয়াইলবাড়ি সড়কে ইজিবাইক রাখাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে সান্দিকোনা ইউনিয়নের চেংজানা গ্রামের শামীম মিয়ার ছেলে ইমরান হাসান বাবুর সঙ্গে আটিগ্রামের কয়েকজন যুবকের ঝগড়া হয়। এর জের ধেরে কিছুক্ষণ পর আটিগ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে শরিফের নেতৃত্বে তার সহযোগীরা ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাবুর ওপর হামলা চালায়। এ সময় তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এক পর্যায়ে বাবুকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তার চাচা এখলাছ মিয়াকেও একইভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। পরে গুরুতর আহতাবস্থায় তাদের ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে বাবু মারা যায়। গুরুতর আহত এখলাছ মিয়াকে পরে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) একেএম মনিরুজ্জামান ও কেন্দুয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জোনাঈদ আফ্রাদ শুক্রবার বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্ন করেছেন। এর আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো.মইনউদ্দিন খন্দকার,খালিয়াজুড়ি সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাজন কুমার দাস, কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহনেওয়াজ ও পৌর মেয়র আসাদুল হক ভূঁইয়াও ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ নিহতের বাড়িতে ছুটে যান। এ ছাড়া র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এবং পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) সদস্যরাও ঘটনাস্থল সাহিতপুরবাজার এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

নিহত বাবুর প্রতিবেশী ও সান্দিকোনা ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার ইসলামউদ্দিন জানান, নিহতের লাশ এখনও ময়মনসিংহে রয়েছে। ময়নাতদন্ত সম্পন্ন না হওয়ায় লাশ এখনও বাড়িতে এসে পৌঁছায়নি। আমরা এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

এ ব্যাপারে কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহনেয়াজ জানান, এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সুমন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত। 



সাতদিনের সেরা