kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

শ্রীপুরে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, গাজীপুর   

২৩ জুলাই, ২০২১ ২০:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শ্রীপুরে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

গাজীপুরের শ্রীপুরে নিজের বসতঘরে দুর্বৃত্তদের অতর্কিত হামলায় গুরুতর আহত ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ মাসুম আহমেদ (২৭) মারা গেছেন। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে রাজধানীর জাতীয় স্নায়ুবিজ্ঞান গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালে (ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত সৈয়দ মাসুম আহমেদ শ্রীপুর পৌর এলাকার বেড়াইদেরচালা গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে। তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী ছিলেন। মাসুম আহমেদ ময়মনসিংহ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী ছিলেন। এর আগে ঈদের দিন দিবাগত রাত তিনটার দিকে নিজের বসতঘরে তাঁর ওপর অতর্কিত হামলা চালায় দুর্বৃত্তদল।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের চাচা মোফাজ্জল হোসেন অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনকে আসামি করে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে থানায় মামলা করেছেন। তবে আজ বিকেলে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের শনাক্তসহ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

মাসুম আহমেদের চাচা মোফাজ্জল হোসেন জানান, ঈদের দিন দিবাগত রাত তিনটার দিকে মাওনা চৌরাস্তা থেকে বাড়ি ফেরে মাসুম। ঘরে ঢোকার আগে তার কক্ষটি খোলা দেখতে পায়। মাসুম কিছুই বুঝতে না পেরে ঘরে ঢুকে। ঘরে ঢোকার পরই আগে থেকে ওত পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা তার ওপর হামলা চালায়। ওই সময় পাশের ঘরে থাকা মাসুম আহমেদের মা ও ভাই টের পেলেও বাইরে থেকে দরজায় ছিটকিনি আটকানো থাকায় বেরোতে পারেনি। একপর্যায়ে মাসুম নিজেই পাশের একটি কক্ষের ছিটকিনি খুলে দিলে তার ভাই দৌড়ে বের হয়। এর আগেই দুর্বৃত্তদল পালিয়ে যায়। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় মাসুমকে উদ্ধার করে প্রথমে নেওয়া হয় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। অবস্থায় অবনতি হলে সেখান থেকে রাজধানীর জাতীয় স্নায়ুবিজ্ঞান গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ  শুক্রবার সকালে মৃত্যু হয় তার।

মোফাজ্জল হোসেন আরো জানান, দুর্বৃত্তরা মাসুমের মাথায় ও বুকে উপর্যুপরি আঘাত করেছিল।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ঘাটনে তদন্ত চলছে। আশা করছি, খুব দ্রুতই জড়িতদের শনাক্তসহ গ্রেপ্তার করতে পারব।



সাতদিনের সেরা