kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

ঘাটে শত শত গাড়ি, লকডাউনের আগে পৌঁছতে পারবে রাজধানীতে?

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

২২ জুলাই, ২০২১ ১৭:০৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঘাটে শত শত গাড়ি, লকডাউনের আগে পৌঁছতে পারবে রাজধানীতে?

ছবি : কালের কণ্ঠ।

স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন শেষে দক্ষিণাঞ্চলের গ্রামের বাড়ি থেকে সড়ক পথে ঢাকা অভিমুখে ছুটছে মানুষ। আবার সমান তালে রাজধানী ছেড়ে গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছে অনেকে। পথে নৌপথ পাড়ি দিতে ফেরিঘাটে বিভিন্ন গাড়ি ও লঞ্চঘাটে যাত্রীর চাপ বেড়েছে।

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাটে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকে ফেরিপারের অপেক্ষায় আটকা পড়ে ঢাকাগামী যাত্রীবোঝাই বাস, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকারসহ কয়েক শ গাড়ি। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেখানে গাড়ি ও যাত্রীর চাপ বাড়ছে। 

আজ দুপুর থেকে বিকেল দৌলতদিয়া ঘাট সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, ফেরিঘাটের জিরোপয়েন্ট থেকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের বাংলাদেশ হ্যাচারিজ পর্যন্ত চার কিলোমিটার ফোরলেন রাস্তার একপাশে যাত্র বোঝাই বাসের দীর্ঘ সারি। ঘাট টার্মিনালের টিকিট কাউন্টার থেকে ৫ নম্বর ফেরিঘাট পর্যন্ত এক কিলোমিটার বাইপাস সড়কের একপাশে ফেরিপারের অপেক্ষায় রয়েছে মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকারসহ বিভিন্ন ছোট গাড়ি।

এদিকে দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন লঞ্চে যাত্রীদের নিরাপদে উঠানোর দায়িত্ব পালন করছে পুলিশ, আনছার ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। প্রতিটি লঞ্চে অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু সেখানে চলাচলকারী লঞ্চগুলো ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী পারাপার করছে বলে অভিযোগ। স্বাস্থ্যবিধির পাশাপাশি ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিসের’ কথা বলা হলেও সেখানে তা মানা হচ্ছে না। 

কর্মরত লঞ্চমালিক সমিতির দৌলতদিয়া লঞ্চঘাট ম্যানেজার মো. নুরুল আনোয়ার মিলন জানান, আগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন। লঞ্চ চলাচলসহ সারা দেশে সবধরনের গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। তাই আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দৌলতদিয়া পাটুরিয়া উভয় পারের লঞ্চঘাটে যাত্রীর চাপ বাড়তে শুরু করেছে। দুপুরের পর থেকে যাত্রীর চাপ কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ সামাল দিতে বর্তমান এই নৌপথে ছোট-বড় ২২টি লঞ্চ সার্বক্ষণিক ভাবে যাত্রী পারাপার করছে। লঞ্চের পাশাপাশি ফেরিতেও পারাপার হচ্ছে বহু যাত্রী। 

বিআইডাব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক শিহাব উদ্দিন জানান, নৌপথের বহরে থাকা ছোট-বড় ১৬টি ফেরির মধ্যে বর্তমান ১৫টি ফেরি সার্বক্ষণিকভাবে চালু রাখা হয়েছে। তবে, স্রোতের কারণে ফেরিপারাপারে স্বাভাবিকের চেয়ে সময় কিছুটা বেশি লাগছে।

এদিকে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানিয়েছেন, ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি যাত্রী নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। লঞ্চঘাট, ফেরিঘাট, বাসটার্মিনাল ও মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ অবস্থান নিয়েছে। সেখানকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক ভাবে মনিটরিং করছেন রাজবাড়ী জেলা পুলিশ প্রশাসন।



সাতদিনের সেরা