kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

'এবার নিজ বাড়িতে আমরা প্রথম ঈদ করলাম'

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি    

২২ জুলাই, ২০২১ ১৩:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'এবার নিজ বাড়িতে আমরা প্রথম ঈদ করলাম'

জমি ছিল না, ঘর ছিল না; অন্যের বাড়িতে জীবন কাটিয়েছি। শেষ বয়সে এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে পাকা ঘরসহ বাড়ি দিয়েছেন। ঘরের সঙ্গে বাথরুম আছে, পাকের ঘর আছে। বিদ্যুৎ পেয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেয়েছি। আমরা ভালো আছি। এবার নিজ বাড়িতে আমরা প্রথম ঈদ করলাম। এবারের ঈদ আনন্দের অনুভূতি বোঝাতে পারব না। আজ বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ইকরতলি আশ্রয়ণ প্রকল্পের পরিবারারে মানুষগুলো কেমন আছেন দেখতে গেলে সাংবাদিকদের এমন কথা  বলেন আন্নরা বেগম। এর আগে উপজেলার আমতলি গ্রামে স্বামী নুর হোসেনকে নিয়ে অন্যের বাড়িতে থাকতেন আন্নরা বেগম। 

রেমা-কালেঙ্গা বনের জায়গায় সুফিয়া বেগম থাকতেন। তার স্বামী জাহাঙ্গীর মিয়া ছিলেন রেমা-কালেঙ্গা বনের ভিলেজার (বন পাহারাদার)। স্বামী মারা যাওয়ার পর বনে তাদের আর ঠাঁই হলো না। সুফিয়া এক ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে অন্যের বাড়িতে থাকতেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপহারের বাড়ি পেয়ে বাকি জীবনটা শান্তিতে কাটাতে পারব। সুফিয়া, আন্নরার মতো এমন ১২০টি ভূমিহীন পরিবার আজ জমিসহ নতুন পাকা ঘর পেয়ে নতুন মাত্রায় এবারের ঈদ আনন্দ শান্তির নিড়ে উপভোগ করেছেন।

চুনারুঘাটের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিলটন চন্দ্র পাল বলেন, উপজেলায় প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ইকরতলি গ্রামে ৭৪টি রানীগাঁও গ্রামে ৩০টি ও পানছড়ি গ্রামে ১৬টি ঘর মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্ত করা হয়েছে। এখানে বিদ্যুৎ, সুপেয় পানিসহ নানা সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

চুনারুঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সত্যজিৎ রায় দাশ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন মহৎ কাজে শরিক হতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। প্রধানমন্ত্রীর এমন উদ্যোগে ভূমিহীন পরিবারগুলোর সামাজিক মর্যাদাসহ জীবনযাত্রার মান উন্নত হবে।



সাতদিনের সেরা