kalerkantho

রবিবার । ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮। ১ আগস্ট ২০২১। ২১ জিলহজ ১৪৪২

ঠাঁই নাই, ঠাঁই নাই...

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জ   

১৯ জুলাই, ২০২১ ১৭:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঠাঁই নাই, ঠাঁই নাই...

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে রাজধানীফেরত ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভিড় বেড়েছে। বৃষ্টি উপেক্ষা করে নাড়ির টানে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ পদ্মা পাড়ি দিয়ে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছে। আজ সোমবার সকাল থেকে ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ কিছুটা কম থাকলেও দুপুরের পর তা বৃদ্ধি পায়। এ সময় ছোট গাড়িসহ দূরপাল্লা বাসের অপেক্ষমান সাড়ি দীর্ঘ হয়। এদিকে লঞ্চ ঘাটে যাত্রীর উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। বৃষ্টির কারণে অনেকেই ভিজে ফেরি ও লঞ্চে উঠতে দেখা যায়। তবে ঘাট কর্তৃপক্ষের দাবি, যাত্রী ও যানবাহনের যে চাপ আছে তা স্বাভাবিক। যানবাহনের চাপ থাকলেও দ্রুতই ফেরি পার হয়ে যাচ্ছে। তবে বৃষ্টির কারণে সাধারণ যাত্রীরা কিছুটা দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যলয়ের ডিজিএম মো. জিল্লুর রহমান বলেন, বেলা বাড়ার সাথে সাথে ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পেতে থাকে। দুপুরের পরে ছোট গাড়ি ও দূরপাল্লার কয়েক শতাধিক যানবাহন পারের অপেক্ষায় থাকে। তবে বহরে থাকা সবগুলো ফেরি চলাচল করার কারণে যানাবাহন গুলোকে ফেরি পারের জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে না। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির কারণে যাত্রীদেও কিছুটা দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ নৌ-রুটে ছোট-বড় ১৬টি ফেরি চলাচল করছে।

কয়েকজন যাত্রী জানান, বৃষ্টির কারণে ঘাটে দুর্ভোগ পার হতে প্রচুর দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। কিন্তু বাড়ি যাচ্ছি পরিবারের সবার সাথে ঈদ করতে। এ কারণে কষ্ট মনে হচ্ছে না। ঘাটে দুই ঘণ্টা অপেক্ষার পর ফেরিতে উঠেছি।

শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানিয়া সুলতানা কালের কণ্ঠকে বলেন, ঘাটে যানবাহনের কিছুটা চাপ থালেও অপেক্ষমান গাড়ির খুব বেশি সময় লাগছে না ফেরিতে উঠতে। নৌ-রুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক থাকার কারণে এক-দুই ঘণ্টা পর ফেরিতে পার হতে পারছে। মহাসড়কে বা ঘাট এলাকায় কোনো প্রকার যানজটের সৃষ্টি হয়নি। ঘাটে পারের জন্য যানবাহন আসলে সিরিয়াল মাফিক দাঁড় করিয়ে পার করা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা ও ট্রাফিক ব্যবস্থায় কঠোর অবস্থান থেকে কাজ করছে পুলিশ।



সাতদিনের সেরা