kalerkantho

বুধবার । ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৮ জুলাই ২০২১। ১৭ জিলহজ ১৪৪২

যতদিন বেঁচে আছি মানুষের সেবা করতে চাই : তোফায়েল আহমেদ

ভোলা প্রতিনিধি   

১৭ জুলাই, ২০২১ ১৭:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যতদিন বেঁচে আছি মানুষের সেবা করতে চাই : তোফায়েল আহমেদ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাবেক রাজনৈতিক সচিব ও ভোলা ১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ স্বাধীন করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যে বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ আজও পাকিস্তানের দাসত্ব বরণ করে থাকতে হতো। আজ সেই বঙ্গবন্ধু বিশ্বে বিখ্যাত নেতা। ৭ই মার্চের বক্তৃত্বা আজ সারা বিশ্বে আন্তজার্তিক বক্তৃতা। সত্যকে কোনো দিন ধামাচাপা দিয়ে রাখা যায় না।

আজ শনিবার সকালে ভোলা সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার নগদ সহায়তা ও ভিজিএফ চাল বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় হতদরিদ্র ত্রিশ হাজার দুই শত শাতাশি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে ভিজিএফ সহায়তার চাল ও নগদ এক হাজার টাকা করে প্রায় ৬০ হাজার জনের মাঝে বিতরণ করা হয়।

তোফায়েল আহমেদ আরো বলেন, ভোলার উন্নয়নে আমার জীবনের সবটুকু সময় দিয়ে উন্নয়ন করেছি। নদী ভাঙন রোধে ধনিয়া, ইলিশা, কাচিয়া, রাজাপুর ও শিবপুরে ব্লক ফেলেছি। ভেলুমিয়া ভোলা থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল। সেতুর মাধ্যমে রাস্তা করে কত উন্নত করেছি তা ভোলার জনগণের কাছে দৃশ্যমান। আল্লাহ যতদিন বাঁচিয়ে রাখেন ততদিন আপনাদের সেবায় আমার জীবন উৎসর্গ করতে চাই।

সাবেক মন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী আজ আন্তর্জাতিক নেতা। বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক বিশ্বে মর্যাদাশালী করেছেন তিনি। করোনা মহামারি রোধে তিনি বাস্তবমুখী অনেক পদক্ষেপ নিয়েছেন। প্রণোদনা দেওয়া দরকার সকল ব্যবস্থা তিনি করেছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৯৩ লাখ মানুষকে সামাজিক নিবরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে নিয়ে আসা হয়েছে। সেই পদক্ষেপের জন্য দারিদ্রের সংখ্যা কমে ২০ শতাংশে চলে আসছে। অতিদরিদ্রের সংখ্যা ও এখন ১১ জনেরও কম শতকরা। সবার অবস্থাই দিন দিন ভালো হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ভোলা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোমিন টুলু, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলদার, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনূছ মিয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লবসহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। 



সাতদিনের সেরা