kalerkantho

বুধবার । ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৮ জুলাই ২০২১। ১৭ জিলহজ ১৪৪২

শজিমেকে যুক্ত হলো ৫০ হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

১৩ জুলাই, ২০২১ ১৫:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শজিমেকে যুক্ত হলো ৫০ হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা

কভিড-১৯ মোকাবেলার লক্ষ্যে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ৫০টি হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলাসহ পাঁচ লাখ ৪৮ হাজার টাকার 'মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট' সরবরাহ করেছে জেলা পরিষদ। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টায় জেলা পরিষদের কনফারেন্স রুমে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্রতিনিধির কাছে সরবরাহ করা হয়।

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মকবুল হোসেনের সভাপতিত্বে ও জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী আশরাফুল মোমিন খানের পরিচালনায় মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট সরবরাহকালে জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান এ কে এম আসাদুর রহমান দুলু, সুলতান মাহমুদ খান রনি, নাজনীন নাহার, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক সার্জন ডা. লোকমান হোসেন, জেলা পরিষদের অন্যান্য সদস্য ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা পরিষদ কর্তৃক সরবরাহকৃত পাঁচ লাখ ৪৮ হাজার টাকার সরবরাহকৃত মেডিক্যাল ইকুইপমেন্টের মধ্যে রয়েছে ৫০টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা সার্কিট, ৫০০ নন ব্রেথিং মাস্ক, ৫০০ অক্সিজেন মাস্ক, ৫০০ নরমাল অক্সিজেন ন্যাজাল ক্যানুলা ও ২০টি ওয়াল মাউন্টেড ফ্লো মিটার।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মকবুল হোসেন বলেন, করোনা মোকাবেলায় সকলকে সচেতন হতে হবে। করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য সবার আগে প্রয়োজন হয় অক্সিজেনের। আর ক্রিটিকাল রোগীদের জন্য উচ্চমাত্রার অক্সিজেন সরবরাহ জরুরি। বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জন্য এসব মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবায় কাজে লাগবে।

মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট গ্রহণকালে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক সার্জন ডা. লোকমান হোসেন জানান, করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য এটি অনেক কাজে লাগবে। এখন যে অবস্থা চলছে করোনাকালে তাতে সচেতন হওয়া জরুরি। প্রতিদিন রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এই ইকুপমেন্টগুলো রোগীদের সেবায় কাজে লাগবে। ভালো সেবা আরও বেশি বেশি প্রদান করা সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি।



সাতদিনের সেরা