kalerkantho

সোমবার । ৫ আশ্বিন ১৪২৮। ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১২ সফর ১৪৪৩

চাঁদপুরে করোনা ঠেকাতে একসঙ্গে কাজ করছে সেনাবাহিনী ও প্রশাসন

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

৭ জুলাই, ২০২১ ২৩:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাঁদপুরে করোনা ঠেকাতে একসঙ্গে কাজ করছে সেনাবাহিনী ও প্রশাসন

চাঁদপুরে কঠোর বিধিনিষেধ কার্যকর করতে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও জেলা প্রশাসন। আজ বুধবার (৭ জুলাই) জেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক ও বাজারগুলো সরেজমিন ঘুরে দেখেন ৪৪ পদাতিক ব্রিগেডের কমান্ডার মো. আমিনুল আকবর খান-এএফডব্লিউসি, পিএসসি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, লে. কর্নেল আবুল খায়েরসহ ঊর্ধ্বতন সেনা ও বেসামরিক কর্মকর্তারা। 

এছাড়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক বৈঠকে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমিনুল আকবর খানকে চলমান কঠোর বিধিনিষেধ নিয়ে চাঁদপুরের সবশেষ পরিস্থিতি অবহিত করেন জেলা প্রশাসক।

এই উপলক্ষে চাঁদপুর স্টেডিয়ামের প্রধান ফটকে তাৎক্ষণিক উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আমিনুল আকবর খান বলেন, এখানে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এবং জেলা প্রশাসনসহ সরকারের অন্যান্য দপ্তরগুলো যৌথভাবে কাজ করছে।

তিনি বলেন, আজ বুধবার ভোর থেকে চাঁদপুরের বিভিন্ন সড়ক ও বাজার ঘুরে দেখেছি-খুব প্রয়োজন ছাড়া কেউই বাসাবাড়ি থেকে বের হচ্ছেন না। এতে সাময়িক কষ্ট হলেও মানুষজনকে আরেকটু ধৈর্য্য ধরার অনুরোধ জানান তিনি। ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আমিনুল আকবর খান বলেন, সেনাবাহিনীর বেতনের টাকা থেকেও ঘরবন্দি অসহায় পরিবারের পাশে খাদ্য সহায়তা নিয়ে অবস্থান করছে।

এদিকে, জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী দেশের প্রতিটি দুর্যোগে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে প্রশাসনকে সহযোগিতা প্রদান করে থাকে। এবারেও করোনার বিস্তার ঠেকাতে সেই দায়িত্ব পালন করছে তারা। যেমনটা চাঁদপুরে বিজিবি, পুলিশ, আনসার ব্যাটেলিয়ন প্রতিটি ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহযোগিতা দিচ্ছে। সেনাবাহিনীও সেই কাজটিই করছে। এই জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানান তিনি। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সহায়তা এবং হট নম্বরে কল করায় এমন সহস্রাধিক পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদানের কথা জানান, জেলা প্রশাসক।

অন্যদিকে, চাঁদপুরে এই পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৮০০ জন। আর এতে মারা গেছেন ১২৯ জন। বর্তমান পরিস্থিতিতে এই জেলায় মোট আক্রান্তের হার গড় ২৫ শতাংশের ওপর।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত চাঁদপুর শহর, সদর উপজেলাসহ আরো সাতটি উপজেলায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে মাঠে দায়িত্ব পালন করছে।



সাতদিনের সেরা