kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

ছাত্রলীগ নেতা বটে!

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

৭ জুলাই, ২০২১ ০৫:২২ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ছাত্রলীগ নেতা বটে!

অভিযুক্ত মেহেদী হাসান আল আমিনের ছবি ফেসবুকের স্ক্রিন শর্ট

প্রাথমিকের গণ্ডি পার হওয়ার কোনো তথ্য-প্রমাণ নেই। মাদকসহ বেশ কয়েকটি মামলাও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। আছে চুরি-ছিনতাইয়ের অভিযোগও। অথচ উপজেলা পর্যায়ে ছাত্রলীগের নেতা দাবি করছেন তিনি। নাম মেহেদী হাসান আল আমিন। 

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক পদের পরিচয় দিচ্ছেন। গত ২৬ জুন নিজের ফেসবুক থেকে একটি পোস্ট দিয়ে আলোচনায় আসেন এই মেহেদী হাসান আল আমিন। তবে তাকে অস্বীকার করে উপজেলা ছাত্রলীগ দাবি করেছে, এই যুবক প্রতারক। তাকে নয়, মূলত ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আল আমিন পাটোয়ারীসহ ১২ জনকে সহসম্পাদকের পদে মনোনয়ন দেওয়া হয়। আর একই পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেহেদী হাসান আল আমিন এই যুবক সংগঠনের নাম ভাঙিয়ে ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করছে। তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান, হাজীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবাদুর রহমান খোকন এবং সাধারণ সম্পাদক মোহন গাজী। 

অভিযোগ রয়েছে, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবাদুর রহমান খোকনের সঙ্গে বেশ সখ্য রয়েছে মেহেদী হাসান আল আমিনের। আর সেই কারণে দিন-তারিখ উল্লেখ না করে সভাপতি ছাত্রলীগের প্যাড ব্যবহার করে তার ঘনিষ্ঠ এই যুবককে সহসম্পাদক পদে মনোয়ন দেয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হাজীগঞ্জ পৌরসভার বলাখাল এলাকার ধেররা গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মেহেদী হাসান আল আমিন। সব মিলিয়ে প্রাথমিকের গণ্ডি শেষ করতে পারেননি তিনি। এর মধ্যে মাদকসহ বেশ কয়েকটি মামলাও আছে তার বিরুদ্ধে। থানা ও গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন একাধিকবার। 

পেশায় অন্যের গাড়িচালক মেহেদী হাসান আল আমিন (২৫) এলাকায় চুরি, ছিনতাইসহ নানা অপরাধেও তার হাত রয়েছে। এর আগেও স্থানীয় তরুণ ব্যবসায়ীর চাচাকে পথ আটকে ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে মেহেদী হাসান আল আমিনসহ তার সঙ্গীরা। এসব অভিযোগের বিষয় জানার জন্য গত সোমবার তার মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও সংযোগ পাওয়া যায়নি। তবে গত ২৬ জুন তার ফেসবুক আইডিতে নিজেকে সহসম্পাদক দাবি করে যে পোস্ট দিয়েছে, তা এখনো সেখানে প্রদর্শিত হচ্ছে। এই নিয়ে স্থানীয়ভাবে নানা আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

এদিকে হাজীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দাবি করেছেন, সংগঠনের নাম ভাঙিয়ে ভুয়া প্যাড তৈরি করে নিজেকে সহসম্পাদক পদে পরিচয় দিয়ে বেড়াচ্ছেন মেহেদী হাসান আল আমিন। শুধু তা-ই নয়, তার নিজের ফেসবুক থেকেও এই নিয়ে পোস্ট দিয়েছেন মেহেদী হাসান আল আমিন। বিষয়টি তাদের নজরে পড়েছে বলেও জানান উপজেলা ছাত্রলীগের এই দুই নেতা। তবে প্রতারণার অভিযোগ তুলে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। তারা এমন প্রতিশ্রুতি জেলা ছাত্রলীগের নেতাদেরকে দিলেও গত তিন দিনে তা কার্যকর করা হয়নি।  

প্রসংগত, এর আগে একই উপজেলার ১১ নম্বর হাটিলা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনয়ন দেওয়া হয়, ছাত্রদলের নেতা আহসান হাবিব রাহেলকে। পদে জেলা ছাত্রলীগের চাপে এবং স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়ে সেই পদ থেকে রাহেলকে অপসারণ করে পদটি স্থগিত করা হয়। সংগঠন নিয়ে এসব অগঠনতান্ত্রিক কাজের জন্য বেশ সমালোচনার মুখে হাজীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ। 

এই বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে গড়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগে অবাঞ্ছিত কারো পদ-পদবি বহন করার সুযোগ নেই। তাই মেহেদী হাসান আল আমিনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হাজীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশিদ বলেন, রাজনৈতিক দলের নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা করা হচ্ছে। এমন অভিযোগ নিয়ে সংশ্লিষ্টরা থানায়  এলে পুলিশ অবশ্যই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।



সাতদিনের সেরা