kalerkantho

সোমবার । ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮। ২ আগস্ট ২০২১। ২২ জিলহজ ১৪৪২

বাল্যবিয়ে থেকে 'মুক্তি' চান বর!

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

৬ জুলাই, ২০২১ ২০:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাল্যবিয়ে থেকে 'মুক্তি' চান বর!

প্রতীকী ছবি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় এক কাজি ‘প্রতারণা’ করে বাল্যবিয়ে করিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি বুঝতে পেরে বর নিজেই এ থেকে মুক্তি পেতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন।

লিখিত আবেদন থেকে জানা যায়, পৌর এলাকার কলেজপাড়ার বাসিন্দা ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সাবেক পরিচালক কে এম হারুনুর রশিদের ছেলে মো. মাহবুবুর রশিদের সঙ্গে স্থানীয় এ মেয়ে বিয়ে হয় গত ২৪ ফেব্রুয়ারি। স্থানীয় নিকাহ রেজিস্ট্রার (কাজি) মো. মাঈনুদ্দিনের মধ্যস্থতায় বিয়েটি সম্পন্ন হয়। কাজি মাঈনুদ্দিন পরিচালিত একটি মাদরাসায় কনে পড়াশুনায় করে জানতে পেরে বয়স সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। এ সময় মাঈনুদ্দিন বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে কাবিনে স্বাক্ষর নেন এবং বয়স সম্পর্কে তিনি অবগত আছেন বলে জানান।

মাহবুবুর রশিদের ভাই মাহমুদুল হাসান জানান, বিয়ের পর তারা নিশ্চিত হতে পারেন যে কনে দশম শ্রেণির ছাত্রী ও তার বিয়ের বয়স হয়নি। বিষয়টি কাজি মাঈনুদ্দিনকে আবার অবহিত করলে তিনি পাত্তা দেননি। এমনকি বিয়ে কাবিননামা চাইলেও সেটা দিতে চাননি। এ অবস্থায় সুরাহা চেয়ে ইউএনও বরাবার অভিযোগ করা হয়। সদ্য বিদায় ইউএনও এ বিষয়ে তদন্ত দেন। মঙ্গলবার নবাগত ইউএনওর কাছে গেলে তিনি সামাজিকভাবে মীমাংসার জন্য বলেন। এ অবস্থায় তারা বেশ বিপাকে আছেন। এমনকি নারী নির্যাতন মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ারও ভয় দেখানো হচ্ছে।

কাজি মো. মাঈনুদ্দিন জানান, কনের বয়স কম বলে কাবিন রেজিস্ট্রি করা হচ্ছে না। বয়স হওয়ার পর রেজিস্ট্রি করা হবে। তবে তিনি এ বিয়ে পড়াননি। মৌলভীর মাধ্যমে বিয়ে পড়ানো হয়েছে। সবাই বিষয়টি অবগত বলে তিনি জানান।



সাতদিনের সেরা