kalerkantho

শনিবার । ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩১ জুলাই ২০২১। ২০ জিলহজ ১৪৪২

ওরা তিনজন নিয়ন্ত্রণ করছে পুরো এলাকা!

আসাদুজ্জামান নূর, সিদ্ধিরগঞ্জ-নারায়ণগঞ্জ   

৬ জুলাই, ২০২১ ০৯:১৮ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ওরা তিনজন নিয়ন্ত্রণ করছে পুরো এলাকা!

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের নিমাইকাশারী এলাকায় গাড়িতে অগ্নিসংযোগ, নাশকতা, হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনাসহ একাধিক মামলার আসামি বিএনপির তিন নেতা নিয়ন্ত্রণ করছেন পুরো নিমাইকাশারী এলাকা। ওই এলাকায় লক্ষাধিক লোকের বসবাস রয়েছে।

মঙ্গলবার (০৬ জুলাই) সকালে সরেজমিনে সিদ্ধিরগঞ্জের নিমাইকাশারী এলাকায় গিয়ে জানা যায়, ৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল মান্নান ওরফে মান্নান ডাক্তার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ছাদু ও বিএনপি নেতা আবু তাহের। ওই এলাকার জায়গা-জমি ক্রয়-বিক্রয় ও দখল, বিচার, সালিসিসহ সব কিছুই নিয়ন্ত্রণ করেন। তাদের নির্দেশ ছাড়া ওই এলাকায় কোনো কিছুই বাস্তবায়িত হয় না।

অনুসন্ধান চালিয়ে জানা যায়, কখনো ডাক্তারি পড়াশোনা না করে ওষুধের দোকান চালিয়ে এলাকায় হয়ে উঠেছেন ডাক্তার। নিমাইকাশারী বাজার মোড় এলাকায় চার কাঠা জমির ওপর করেছেন চারতলা বাড়ি, যার আনুমানিক মূল্য চার কোটি টাকা, একই এলাকায় চার কাঠা জমিতে রয়েছে তার নামে মার্কেট, যার আনুমানিক মূল্য এক কোটি বিশ লাখ টাকা। এ ছাড়া এলাকার কন্টিনেন্টালে আঠারো কাঠা জমির মালিকানা রয়েছে তার। হাজী কালাচাঁন বালুর মাঠ সংলগ্ন ছয় কাঠা জমিতে চৌদ্দ তলা ভবন নির্মাণ করেছেন আবদুল মান্নান ওরফে ডাক্তার মান্নান।

আবু তাহের ওরফে নেতা তাহের ব্যাংকে চাকরি করলেও নিমাইকাশারী এলাকার মানুষ তাঁকে বিএনপি নেতা তাহের হিসেবেই চেনেন। বিএনপির আমলে মাঠ কাপানো আবু তাহের বাড়ি-গাড়িসহ অঢেল সম্পত্তির মালিক হয়েছেন। এলাকায় কোনো জায়গা-জমি বিক্রি হলে আবু তাহেরের কাছেই বিক্রি করতে হবে- এটা ওই এলাকার এক রকম রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। জমিতে সমস্যা বা ওয়ারিশ থাকলেও তিনি জমি বায়না করেন। তার সহযোগী হিসেবে থাকেন আবদুল মান্নান ও ছাদু। বিচার-সালিসিসহ এলাকার পান থেকে চুন খসলেই আবু তাহের বাহিনী মীমাংসার দায়িত্ব নেয়, বিচারের নামে মোটা অঙ্কের টাকায় করেন রফা।

আবু তাহের নিমাইকাশারী এলাকার সিকোটেক্স গার্মেন্ট সংলগ্ন পাঁচ কাঠা জমিতে তিনতলা বাড়ি করেছেন। যার আনুমানিক মূল্য চার কোটি টাকা। পাশেই পাচঁ কাঠা জমি কিনেছেন, যার আনুমানিক মূল্য দেড় কোটি টাকা, এ ছাড়া তার বাড়ির সামনে রয়েছে পাঁচ কাঠা জমি, এ ছাড়া কন্টিনেন্টাল এলাকায় আঠারো কাঠা জমিতে মালিকানা রয়েছে তার। হাজী কালাচান বালুর মাঠ সংলগ্ন জমিতে চৌদ্দতলা ভবনের মালিকানা, নূরবাগ কাঁচাবাজার সংলগ্ন দুটি দশতলা ভবনের মালিকানাসহ নামে-বেনামে বহু জমি-জায়গার মালিক আবু তাহের। কিছুদিন আগেও তিনি সানারপাড় শেখ মোরতোজা আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক বশির উদ্দিনকে এলাকার সন্ত্রাসীদের নিয়ে বেধড়ক পিটিয়েছেন। এই ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

তার আরেক সহযোগী সাইফুল ইসলাম ছাদু, ৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। এলাকায় তিনি জমির দালাল হিসেবে পরিচিত। নিমাইকাশারী মোড় এলাকায় বহুতলবিশিষ্ট বাড়ি রয়েছে তার। মাদানীনগর চার রাস্তার মোড় এলাকায় প্রায় পাঁচ কাঠা জমিতে একটি মার্কেট রয়েছে তার। যার আনুমানিক মূল্য দেড় কোটি টাকা। এ ছাড়া কন্টিনেন্টালে আঠারোকাঠা জমিতে মালিকানা রয়েছে তার। হাজী কালাচান বালুর মাঠ সংলগ্ন চৌদ্দতলা ভবনের মালিকানা রয়েছে। নূরবাগ কাঁচাবাজার সংলগ্ন দুটি দশতলা ভবনের মালিকানাও রয়েছে তার নামে। এ ছাড়া নামে-বেনামে রয়েছে অনেক জায়গা-জমি। ওয়ারিশ বা ভেজাল জমি কিনে বিক্রি করাই তার পেশা।

স্থানীয়রা জানান, আওয়ামী লীগের আমলে এলাকা দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন এই তিন সহযোগী। বিচার-সালিস, এলাকায় জমি ক্রয়-বিক্রয় থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রে তাদের নাম পাওয়া যায়।

অভিযোগের ব্যাপারে বিএনপি নেতা আবু তাহের জানান, আমি যা কিছু করেছি বৈধ উপায়ে করেছি, বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে আমি জড়িত নই। আব্দুল মান্নান মিয়া ওরফে ডাক্তার মান্নানের মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে কালের কণ্ঠ'র সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ফোনটি কেটে বন্ধ করে দেন। সাইফুল ইসলাম ছাদুর সঙ্গে যোগাযোগের জন্য বারবার চেষ্টা করা হলেও তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াসিন মিয়া কালের কণ্ঠকে জানান, বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত জ্বালাওপোড়াও মামলাসহ একাধিক মামলার আসামিরা কিভাবে এলাকায় জমি কেনা-বেচাসহ সব কিছু নিয়ন্ত্রণ করছে তা আমাকে ভাবিয়ে তুলেছে। এসব চিহ্নিত আসামিকে গ্রেপ্তার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মশিউর রহমান কালের কণ্ঠকে জানান, এসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মুস্তাইন বিল্লাহ কালের কণ্ঠকে জানান, দাগি আসামিদের চিহ্নিত করে তাদের গ্রেপ্তার করার জন্য স্থানীয় পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।



সাতদিনের সেরা