kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

সন্দ্বীপে ভুয়া ডাক্তার আটক, পরে ছেড়ে দিলেন ইউএনও

সন্দ্বীপ (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১ জুলাই, ২০২১ ১৭:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সন্দ্বীপে ভুয়া ডাক্তার আটক, পরে ছেড়ে দিলেন ইউএনও

ইনি হচ্ছে ভুয়া ডাক্তার। ডাক্তার পদবি লেখে। কিন্তু সে আসলে ডাক্তার না। কারণ 'ডাক্তার' পদবি লেখার জন্য 'এমবিবিএস' কোর্স করতে হয়। এরপর বাংলাদেশ মেডিক্যাল ডেন্টাল কাউন্সিলে রেজিস্ট্রেশন করে সিরিয়াল নম্বর পেলে নামের আগে ডাক্তার লেখা যায়। কিন্তু এ লোক এমবিবিএসও না বিডিএসও না। কিন্তু চেম্বার করে চিকিৎসা দিচ্ছে। এ কারণে আমরা তাকে আটক করেছি। তার নাম তৌহিদোল ইসলাম রাসেল।

সন্দ্বীপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জেপি দেওয়ান আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ সন্দ্বীপে বিভিন্ন বাজারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে পুলিশের ভ্যানে করে কথিত ডাক্তারকে প্রকাশ্যে এভাবে পরিচয় করিয়ে তার ব্যাপারে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন।

অবশ্য আটকের দু'ঘণ্টা পর শাস্তি ছাড়াই তাকে শেষবারের মতো সতর্ক করে চেম্বার করতে নিষেধ করেন ইউএনও। তবে শেষ খবরে জানা গেছে, ছাড়া পেয়ে কথিত ভুয়া ডাক্তার বিকেল থেকে পুনরায় চেম্বারে বসে প্র্যাকটিস শুরু করেছেন। কথিত এ চিকিৎসক স্থানীয় মাইটভাঙ্গা ইউনিয়ন ৯নং ওয়ার্ডের আব্দুল বাতেনের পুত্র। এর আগেও স্থানীয় ভুক্তভোগীদের নানা হয়রানি ও অভিযোগ নিয়ে পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় স্থানীয় কেরামতিয়া মোড়ে বাতেন মেডিকোতে অভিযান চালিয়ে রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ইউএনও জে পি দেওয়ান তাকে ভুয়া ডাক্তার হিসেবে চিহ্নিত করেন। এসময় সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ মামুন ও সন্দ্বীপ থানার ওসি বশির আহাম্মদ তার সঙ্গে ছিলেন।

সন্দ্বীপ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ফজলুল করিম বলেন, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অনেক দিনের। বিদায়ী ইউএনওর কাছে আমি প্রসিকিউশন দিয়েছিলাম কিন্তু কোনো কিছু হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জে পি দেওয়ান বলেন, তাকে সতর্ক করা হয়েছে। আমরা এ মুহূর্তে লকডাউন নিয়ে ব্যস্ত আছি। পরে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 



সাতদিনের সেরা