kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

ফি মওকুফের দাবি ইবি শিক্ষার্থীদের, একমত উপাচার্য-কোষাধ্যক্ষ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদদাতা   

২৮ জুন, ২০২১ ১৮:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফি মওকুফের দাবি ইবি শিক্ষার্থীদের, একমত উপাচার্য-কোষাধ্যক্ষ

করোনাভাইরাসের কারণে প্রায় ১৬ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। ফলে এই সময়ে আবাসন, পরিবহন ও অন্যান্য সুবিধা না নেওয়ায় এসব ফি মওকুফের দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা পরিবহন ও আবাসিক সেবা পায়নি এবং এ বাবদ অর্থও ব্যয় হয়নি। তাই শিক্ষার্থীদের থেকে ফি নেওয়া অযৌক্তিক।

সোমবার (২৮ জুন) এ দাবিতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে শাখা ছাত্র মৈত্রী। স্মারকলিপিতে বলা হয়, করোনা মহামারীকালে শিক্ষার্থীদের পরিবার আর্থিক অস্বচ্ছলতার মধ্যে দিনযাপন করছে। এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের উপর আরোপিত ফি হচ্ছে মরার উপর খাড়ার ঘা! স্মারকলিপিতে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের আবাসিক ও পরিবহনসহ সকল প্রকার ফি মওকুফের জোর দাবি জানানো হয়।

বেলা ১২টায় শাখা ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি আবদুর রউফ ও সহসভাপতি আখতার হোসেন আজাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন।

এর আগে গত ৯ জানুয়ারি একই দাবিতে ছাত্র সমাবেশের আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়ন। প্রশাসন বরাবর স্মারকলিপিও দেন তারা। পরবর্তীতে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করে প্রশাসন বরাবর পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থীর স্বাক্ষর সংবলিত স্মারকলিপি প্রদান করে সংগঠনটি। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে ফি মওকুফের দাবি জানিয়ে আসছেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে শিক্ষার্থীদের এ দাবিকে যৌক্তিক আখ্যা দিয়ে এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া বলেন, পরিবহন ও আবাসিক হল শিক্ষার্থীরা পুরোপুরিই ব্যবহার করেনি তাই এসব ফি মওকুফের দাবি যৌক্তিক। বিষয়টি নিয়ে উপাচার্য স্যারের সাথে কথা হয়েছে। তিনিও বিষয়টি নিয়ে ভাবছেন এবং পজিটিভলি নিয়েছেন। পুরো ফি মওকুফ করতে না পারলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের সামর্থ্য অনুযায়ী কনসিডার করা হবে।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি শিক্ষার্থীদের এই দাবি অবশ্যই যৌক্তিক। আমরা বিষয়টি নিয়ে ভাবছি, অন্যদের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।



সাতদিনের সেরা