kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

চাঁদপুরে মজু হত্যায় জড়িত সন্দেহে দুজন আটক

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

২৩ জুন, ২০২১ ২২:৪৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চাঁদপুরে মজু হত্যায় জড়িত সন্দেহে দুজন আটক

পুলিশের ধারণা পূর্ব পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন বৃদ্ধ মজিবুর রহমান মজু খাঁ। এতে জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য উজ্জল হোসেন বেপারী ও হাবিব শেখ নামে দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এর আগে মঙ্গলবার (২২ জুন) রাতে চাঁদপুর সদর উপজেলার বাখরপুর গ্রামের একটি বিল থেকে গলা কাটা অবস্থায় নিহত মজু খাঁর লাশ উদ্ধার করে সদর থানা পুলিশ। 

নিহতের স্বজন ও পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে মজিবুর রহমান মজু খাঁ (৬০) তার বাড়ির পাশে বিলে মাছ ধরতে যান। পরে সন্ধ্যার পরও তিনি ফিরে না আসায় স্বজনরা তাকে খুঁজতে বের হন।

এরই মধ্যে বাড়ির প্রায় এক কিলোমিটার দূরে মজু খাঁর গলা কাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখেন তারা। এই ঘটনার পর বিষয়টি সদর মডেল থানাকে জানানো হয়। পরে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থল থেকে ফিরে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) সুদীপ্ত রায় জানান, দুর্বৃত্তরা ধারাল অস্ত্র দিয়ে আঘাত করায় ঘটনাস্থলে ভিকটিমের মৃত্যু হয়েছে।

তিনি আরো জানান, হাত দিয়ে ঠেকাতে গিয়ে নিহতের আঙুলেও আঘাত পান। তাছাড়া সামনে থেকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে আঘাত করায় শরীর আর মাথা প্রায় বিচ্ছিন্ন ছিল। জেলা পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। সুতরাং সেই হিসেব করেই পুলিশ মূল ঘটনা খুঁজে পেতে তদন্ত শুরু করেছে।

নিহতের ছেলে সোলাইমান খাঁ জানান, তাদের বাড়ির অন্য একটি পরিবারের সঙ্গে জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। তার ধারণা তারাই তার বাবাকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। এই ঘটনায় সদর মডেল থানায় চারজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেছেন তিনি।

সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুজন বড়ুয়া জানান, মামলার প্রেক্ষিতে উজ্জল হোসেন বেপারী এবং হাবিব শেখ নামে দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। বুধবার রাতে তদন্তকারী এই কর্মকর্তা আরো জানান, তারা এখনো সরাসরি মুখ খোলেনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাখরপুর গ্রামের মৃত ওয়ালি উল্লাহ খাঁর ছেলে নিহত মজিবুর রহমান মজু খাঁ। চার ছেলে দুই মেয়ের বাবা তিনি। বাড়ির পাশেই একটি চা দোকান চালাতে তিনি।

এদিকে, বুধবার দুপুরে নিহতের লাশের ময়না তদন্ত চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে সম্পন্ন হয়। পরে পরিবারের কাছে তা হস্তান্তর করে পুলিশ। বুধবার বিকেলে মজু খাঁর জানাজা শেষে পরিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।



সাতদিনের সেরা