kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩০ জুলাই ২০২১। ১৯ জিলহজ ১৪৪২

কোয়ারেন্টিন সেবা দিচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২১ জুন, ২০২১ ২০:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোয়ারেন্টিন সেবা দিচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে গত প্রায় দুই মাসে ১৮১৪ জন যাত্রী বাংলাদেশে প্রবেশ করে। এর মধ্যে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল লিমিটেডে রবিবার নাগাদ কোয়ারেন্টিনের সেবা গ্রহণ করেছেন ২৬৭ জন। মেডিক্যাল কলেজটিতে নামমাত্র সার্ভিস চার্জের মাধ্যমে কোয়ারেন্টিনে অবস্থানরদের সেবা দেওয়া হচ্ছে। প্রতিষ্ঠান থেকে সেবা পেয়ে ভারত থেকে আসা যাত্রীরাও বেশ খুশি। কলেজটিতে ১০০ জনের কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা করা আছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভারতফেরত বাংলাদেশি যাত্রী ও বিশেষ অনুমতি নিয়ে আসা ভারতীয় যাত্রীদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে। প্রশাসনের উদ্যোগে ১০টির বেশি প্রতিষ্ঠানে যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে ২৫০ শয্যা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা ও আখাউড়ার বিভিন্ন হোটেল ও ঢাকার ব্র্যাক লার্নিং সেন্টার। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানেই ব্যক্তিগত খরচে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে।

মেডিক্যাল কলেজ সূত্র জানায়, এখন পর্যন্ত ২৬৭ জন যাত্রী এখান থেকে সেবা নিয়েছেন। এর মধ্যে ২১০ জনকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। বাকি ৫৭ জন এখানো কোয়ারেন্টিনে আছেন। এখানে দুজন করে একটি থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কোয়ারেন্টিনে থাকা যাত্রীদের পছন্দমতো তিনবেলা খাবার সরবরাহ করা হয়। প্রতিদিনই বিছানার চাদর বদল করে দেওয়াসহ পরিচ্ছন্নতার কাজ পরিচালনা করা হয়। এছাড়া চিকিৎসাসেবাও দেওয়া হয় অবস্থানরতদের। এক্ষেত্রে প্রতিদিন মাত্র ২০০ টাকা করে সার্ভিস চার্জ নেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে যারা হোটেলে থাকছেন তাদের প্রতিদিন এক থেকে তিন হাজার টাকা খরচ করতে হচ্ছে।

খেলাঘর আসর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাধারণ সম্পাদক নীহার রঞ্জন সরকার বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজটির উদ্যোগ খুবই প্রশংসনীয়। এখানে থাকার পরিবেশ যেমন ভালো তেমনি নিয়ম মানার ক্ষেত্রেও বেশ সতর্কতা অবলম্বন করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ডা. মো. আবু সাঈদ বলেন, 'সেবার লক্ষ্য নিয়েই ভারতফেরত যাত্রীদের জন্য এখানে কোয়ারেন্টিন এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমরা এখানে সর্বোচ্চ সেবা দেওয়ার চেষ্টা করছি।'



সাতদিনের সেরা