kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

পাওনা টাকা নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড, কৃষকের মৃত্যু! টাকার বিনিময়ে আপসচেষ্টা

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২১ জুন, ২০২১ ১৭:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাওনা টাকা নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড, কৃষকের মৃত্যু! টাকার বিনিময়ে আপসচেষ্টা

মানিকগঞ্জ সদর ও ধামরাই উপজেলার সীমান্তঘেঁষা কেষ্টি গ্রামের কৃষক ফজল হককে গলা চেপে ধরে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত আলামিন (২৮) গাঢাকা দিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছে। এদিকে পুলিশের উপস্থিতিতে আপসের নামে কালক্ষেপণ করা হচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসীর কাছ থেকে জানা গেছে, কেষ্টি গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে দোকানদার আলামিনের কাছ থেকে একই পাড়ার কৃষক ফজল হক (৫৩) কুঁড়া-ভুসি নিয়ে থাকেন প্রতিনিয়ত। এতে ফজল হকের কাছে দুই হাজার ১০০ টাকা পান আলামিন। পরে পাওনা টাকা নিয়ে ফজল হকের স্ত্রী সাহিদা বেগমকে রবিবার অপমান করেন আলামিন। একপর্যায়ে তিনি তার (সাহিদার) পরনের কাপড় দিয়ে বেঁধে রাখারও চেষ্টা করেন। পরে কৌশলে ছুটে গিয়ে রক্ষা পান সাহিদা। এ খবর জানতে পেরে ফজল হক আলামিনের দোকানে গিয়ে প্রতিবাদ করেন। পরে বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে ফজল হককে ওয়ালের সঙ্গে গলা চেপে ধরেন আলামিন। এতে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন ফজল হক। এ ঘটনার পর প্রতিবেশীরা প্রায় দুই ঘণ্টা মাথায় পানি ঢালেন। জ্ঞানও ফিরে আসে তার, কিন্তু বারবার মূর্ছা যান। এ অবস্থায় রাতের বেলায় ফজল হক মারা যান।

ফজল হকের স্ত্রী সাহিদা বেগম বলেন, ‘আলামিন গলা চেপে ধরার কারণেই আমার স্বামী মারা যান। আমি এর বিচার চাই।’ এদিকে কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে, কয়েক লাখ টাকার বিনিময়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে একটি চক্র। 

এ বিষয়ে ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবার আলী বলেন, ‘ঘনটাস্থলে আছি। তদন্ত চলছে।’



সাতদিনের সেরা