kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

কুমিল্লা-৫ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন আ. লীগ প্রার্থী

বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

২০ জুন, ২০২১ ২১:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুমিল্লা-৫ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন আ. লীগ প্রার্থী

আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম খান।

কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো. জসিম উদ্দিন। আগামী ২৪ জুন মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন ধার্য থাকলেও চারদিন আগেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত জানালেন তিনি। 

আজ রবিবার বিকেলে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে এসে রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসানের কাছে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদনটি জমা দেন জাপার প্রার্থী জসিম উদ্দিন। ফলে এ আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম খান। এ আসন থেকে তারা দুজনই দুই দলের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছিলেন।

যদিও জেলা প্রশাসন থেকে এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে কিছু জানানো হয়নি। তবে কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, জাতীয় পার্টির প্রার্থী জসিম উদ্দিন প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন। তার আবেদনটি আমরা পেয়েছি। ২৪ জুন বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে।

জানা গেছে, রবিবার বিকেলে দলীয় কয়েকজন নেতা-কর্মী নিয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবুল হাসেম খান এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো. জসিম উদ্দিন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে আসেন। পরে জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসকের কক্ষে প্রবেশ করে সকলের উপস্থিতিতে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দেন জসিম উদ্দিন। এ সময় বুড়িচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আখলাক হায়দার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিদার মো. নিজামুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগের ৬/৭ নেতা উপস্থিত ছিলেন। তবে জাপার প্রার্থী জসিম উদ্দিন একাই আসেন সেখানে। 

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়ে জানতে চাইলে জসিম উদ্দিন বলেন, এখন কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না। ২৪ তারিখ আনুষ্ঠানিকভাবে সব বলবো। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, হাসেম খান সাহেব ভালো মানুষ। এই করোনা পরিস্থিতে নির্বাচনের মাঠের অবস্থাও ‘তেমন ভালো না’। তাই সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।



সাতদিনের সেরা