kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

উন্নয়নের লক্ষেই সরকার ডেল্টা প্রকল্প গ্রহণ করেছে: নৌপ্রতিমন্ত্রী

গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

১৮ জুন, ২০২১ ১৬:৫০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উন্নয়নের লক্ষেই সরকার ডেল্টা প্রকল্প গ্রহণ করেছে: নৌপ্রতিমন্ত্রী

‘আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই দেশে উন্নয়ন হয়। দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের লক্ষেই সরকার ডেল্টা প্রকল্প গ্রহণ করেছে। বাংলাদেশের নদীগুলোকে সঠিক ব্যবস্থাপনায় আনার জন্যই এ ডেল্টা প্লান নেওয়া হয়েছে। এতে নদীর নাব্যত ফিরে আসবে।'

আজ শুক্রবার সকাল ৯টায় গলাচিপা লঞ্চঘাট পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এক বলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘কোনো ষড়যন্ত্রই দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না।’ এ সময় উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য এসএম শাহজাদা, বিআইডব্লিউটিএ এর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক, প্রকল্প প্রধান (ড্রেজিং) মু. আব্দুল মতিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সন্তোষ কুমার দে, সাধঅরণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা টিটো, গলাচিপা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ সাহিন, গলাচিপা পৌর মেয়র আহসানুল হক তুহিন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশিষ কুমার প্রমুখ।

পরে নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রী গলাচিপা ও দশমিনা উপজেলার অসংখ্য নদী বিধৌত দক্ষিণ জনপদের নদী সমূহে এলোমেলো ডুবোচরে ক্ষতিগ্রস্ত দুই তীরের জনপদ ও নদী শাসনে কর্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরেজমিন পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি গলাচিপার বোয়ালিয়া স্লুইসগেট, পানপট্টি লঞ্চঘাট ও বদনাতলী লঞ্চঘাট পরিদর্শন করেন।

ডেল্টা প্লান সম্পর্কে রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডক্টর আবু রেজা মো. তৌফিকুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উপকূলীয় এলাকার বেড়িবাঁধগুলো অনেক আগে নির্মাণ করা হয়েছে। এগুলোর উচ্চতা এখন ঠিক নেই। তাই এগুলোর উচ্চতা বাড়ানো প্রয়োজন। এ ছাড়া আমাদের দেশে আগে ১০ থেকে ১২ বছর পর পর ঘূর্ণিঝড় বা জলোচ্ছ্বাস হতো। এখন প্রায় প্রতিবছরই জলোচ্ছ্বাস বা ঘূর্ণিঝড় হচ্ছে। জলোচ্ছ্বাস ও উজানের পানি থেকে রক্ষা পেতে হলে আমাদেরকে ডেল্টা প্লান করতে হবে। করতে হবে নদী খনন। আর আমারা আরো সতর্ক হলে আমাদের ক্ষয় ক্ষতি কম হবে। যেমন-আর্জেন্টিনায় যখন খরা হয় আমাদের এখানে বন্যা হবে। এই বিষয়গুলো নজর দিয়ে কাজ করতে হবে। এ ছাড়া ডেল্টা প্লানের মাধ্যমে নদী খনন করে বড় বড় চৌবাচ্চা তৈরি করতে হবে। যেহেতু বন্যা আমাদের অঞ্চলে অল্প সময়ের জন্য আসে তাই এর মাধ্যমে অতিরিক্ত পানি ম্যানেজ দুর্যোগ মোকাবেলা করা সম্ভব হবে। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত দুর্যোগের ঝুঁকি অনেকাংশে হ্রাস পাবে।

উল্লেখ্য, পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য এস এম শাহজাদা গত ১৬ জুন বুধবার জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় ‘আর কোনো দাবি নাই, ত্রাণ চাই না বাঁধ চাই’ লেখা প্লাকার্ড গলায় ঝুলিয়ে উপকূলের মানুষের দাবি তুলে ধরে বক্তব্য দেন।



সাতদিনের সেরা