kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

যেভাবে বয়স্কভাতার টাকা নিজের পকেটে তোলেন গ্রামপুলিশ সোহেল

কাজিপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৮ জুন, ২০২১ ১৪:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যেভাবে বয়স্কভাতার টাকা নিজের পকেটে তোলেন গ্রামপুলিশ সোহেল

সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার গান্ধাইল ইউনিয়নের চকদামপুর গ্রামের বৃদ্ধ আজিবার হোসেনের মোবাইল ফোনে নগদ হিসেবে আসে বয়স্ক ভাতার তিন হাজার টাকা। একই গ্রামের গ্রামপুলিশ সোহেল রানা বিষয়টি জানতে পেরে আজিবারের সঙ্গে কথা বলতে যান। আলাপচারিতার এক পর্যায়ে আজিবারের মোবাইল ফোনটি হাতে নেন তিনি। এরপর পিন নম্বর জেনে নিজের হিসেব নম্বরে পুরো তিন হাজার টাকা ট্রান্সফার করেন। ওই গ্রামের আরও দুজনের ভাতার টাকাও তিনি এভাবে নিজের অ্যাকাউন্টে নিয়ে নিয়েছেন। 

এদিকে আশপাশের অন্য বয়স্কদের মোবাইল ফোনে টাকা আসার বিষয়টি জানাজানি হলে আজিবার হোসেন তার সমস্যাটি নিয়ে গান্ধাইল ইউপি চেয়ারম্যানের শরণাপন্ন হন। চেয়ারম্যান আজিবারের সাথে কথা বলে এবং তার মোবাইল ফোন দেখে টাকা আসা এবং অন্য অ্যাকাউন্টে টাকা চলে যাওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত হন। এসময় তিনি ওই বৃদ্ধকে কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেবার পরামর্শ দেন।  ভুক্তভোগীরা  ইউএনওর নিকট অভিযোগ করলে তিনি গত বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) গ্রামপুলিশ সোহেল রানাকে নিজ কার্যালয়ে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এসময় সোহেল রানা অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে জানান, ভুল বুঝতে পেরে ওই তিনজনকে নগদের মাধ্যমে টাকা ফেরত দিয়েছেন। 
 
এ বিষয়ে গান্ধাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম জানান, গ্রামপুলিশ সোহেলকে  জিজ্ঞাসাবাদে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় তিনি তিনজনের মোবাইলে টাকা ফেরত দিয়েছেন।  

কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হাসান সিদ্দিকী জানান, বিগত আড়াই বছরে স্বচ্ছতার সাথে প্রায় ২৫ জন গ্রাম পুলিশ নিয়োগ দিয়েছি। সুযোগ সৃবিধার দিকটিও দেখছি। তদুপরি তাদের একজনের এমন কাজ করাটা দুঃখজনক। শুনেছি টাকা ফেরত দিয়েছে। তারপরেও তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। 



সাতদিনের সেরা