kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩০ জুলাই ২০২১। ১৯ জিলহজ ১৪৪২

আওয়ামী পরিবারের সন্তানদের নিয়ে কুবি ছাত্রদলের কমিটি!

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৭ জুন, ২০২১ ২১:১১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আওয়ামী পরিবারের সন্তানদের নিয়ে কুবি ছাত্রদলের কমিটি!

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) শাখা ছাত্রদলের ৩১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেছে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি। সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বুধবার রাতে এ কমিটি ঘোষণা করেন।

কমিটিতে লোকপ্রশাসন বিভাগের ২০০৭-০৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল মামুনকে আহ্বায়ক এবং ইংরেজি বিভাগের ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর রহমান শুভকে সদস্যসচিব করা হয়েছে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, কমিটিতে আওয়ামী পরিবারের সন্তান, ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ব্যক্তি, দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয়, অছাত্র ও ব্যবসায়ীদের গুরুত্বপূর্ণ পদে মূল্যায়ন করা হয়েছে। এ নিয়ে একাধিক নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এমনকি ঘোষিত কমিটিতে স্থান পাওয়া সদস্যসচিবসহ একাধিক নেতা কমিটি প্রত্যাখ্যান করেছেন।

জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৩ অক্টোবর শাখা ছাত্রদলের প্রথম কমিটি দেওয়া হলেও অছাত্র এবং বহিরাগতদের আধিক্য থাকায় নিষ্ক্রিয় ছিল শুরু থেকেই। পরের বছর ১৩ অক্টোবর কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৮ সালের ১১ জুন মেয়াদোত্তীর্ণ সে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হয়।

ছাত্রদলের কমিটিতে স্থান পাওয়া একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রথম সারির কোনো নেতাই বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত ছাত্র নন। কয়েকজন সান্ধ্যকালীন কোর্সে ভর্তি থাকলেও বাকিরা বিভিন্ন ব্যবসা বা চাকরি করছেন। এ ছাড়া মাঠের রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরে নিষ্ক্রিয় থাকার অভিযোগও রয়েছে কয়েকজনের বিরুদ্ধে।

যোগাযোগ করা হলে নবনির্বাচিত আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ২০০৫-০৬ সেশন থেকেই কমিটিতে আবেদন করার অনুমতি কেন্দ্র থেকে দেওয়া হয়েছে। নবনির্বাচিত সবাই মিলে আমরা কুবি ছাত্রদলকে এগিয়ে নিয়ে যাবো।

কমিটির সদস্যসচিব মোস্তাফিজুর রহমান শুভ বলেন, আমরা বেশির ভাগ নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলেছি। প্রায় তিন-চতুর্থাংশ নেতা এ কমিটির প্রতি পূর্ণভাবে অনাস্থা জানিয়েছে। সেন্ট্রালকে আমরা এ মেসেজ দিয়েছি। এ কমিটিতে আওয়ামী লীগের পরিবারের সন্তানদেরও স্থান দেও য়া হয়েছে। এছাড়া ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছে এমন ছেলেদেরও কমিটিতে পদ দেওয়া হয়েছে। মাসুম খান আর মুজাহিদুল ইসলাম নামে দুজনকে কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে অথচ তাদেরকে কেউ চেনেই না।

এসব বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, আহ্বায়ক কমিটি স্বল্প সময়ের জন্য হয়। এটা বেশিদিন থাকবে না। আমরা সাংগঠনিকভাবে খোঁজখবর নিয়েই কমিটি দিয়েছি। 

অনিয়মিত ছাত্র, ব্যবসায়ী ও নিষ্ক্রিয়দের প্রাধান্য দেওয়ার অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইভিনিং এর ছাত্রও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। সংগঠনের দরজা কারও জন্য বন্ধ না। শহীদ জিয়ার আদর্শ ধারণ করে সবাই এ সংগঠনে আসতে পারবে।



সাতদিনের সেরা