kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

মেমোরি কার্ড চুরির অভিযোগে স্ত্রীকে মারধর, বিষপান

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি   

১৬ জুন, ২০২১ ২২:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেমোরি কার্ড চুরির অভিযোগে স্ত্রীকে মারধর, বিষপান

মেমোরি কার্ড চুরির অভিযোগ এনে স্ত্রী মোমেলা বেগমকে মারধর করেন আব্দুল মজিদ ভাণ্ডারি। পরে ওই গৃহবধূ বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। স্বজনরা ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে ভর্তি করেছে।

জানা গেছে, গত দুবছর পূর্বে উপজেলার খাকদান গ্রামের মোমেলার সঙ্গে সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ-পশ্চিম আমতলী গ্রামের আব্দুল মজিদ ভাণ্ডারির বিয়ে হয়। এটি মজিদ ভাণ্ডারির তৃতীয় বিয়ে। বিয়ের পর থেকেই স্বামী মজিদ ভাণ্ডারি বিভিন্ন মিথ্যা অপবাদ দিয়ে স্ত্রী মোমেলাকে নির্যাতন করে আসছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে ফোনের মেমোরি কার্ড চুরির অপবাদ দিয়ে স্ত্রী মোমেলাকে মারধর করেন স্বামী মজিদ ভাণ্ডারি। এতে মোমেলার শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম হয়। একই বিষয় নিয়ে আজ বুধবার (১৬ জুন) সকালে পুনরায় তাকে মারধর করে স্বামী মজিদ ভাণ্ডারি। মিথ্যা অপবাদ ও স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে মোমেলা আজ দুপুরে আত্মহত্যা করার জন্য ঘরে থাকা কীটনাশক পান করে। সংবাদ পেয়ে স্বজনরা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আহত মোমেলা বেগম হাসপাতালে বসে কান্নাজনিত কণ্ঠে বলেন, স্বামী আমাকে বিভিন্ন সময়ে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে নির্যাতন করে আসছে। গতকাল রাতে মোবাইলের একটি মেমোরি কার্ড চুরির অপবাদ দিয়ে আমাকে মারধর করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত ফুলা জখম করেছে। একই বিষয় নিয়ে আজও সকালে আবারো আমাকে মারধর করেছে। মিথ্যা অপবাদ ও স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছি।

স্বামী মজিদ ভাণ্ডারি হাসপাতালে বসে সাংবাদিকদের বলেন, আমার একটি মেমোরি কার্ড আমার স্ত্রী মোমেলা চুরি করেছে। ওই মেমোরি কার্ডটি ফেরৎ চাওয়ার পরেও সে দেয়নি এ জন্য তাকে আমি মারধর করেছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. তানজিরুল ইসলাম বলেন, মোমেলা বিষপান করেছে। তাকে যথাযথ চিকিৎসা দিয়ে বিষমুক্ত করা হয়েছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত ফুলা জখমের চিহ্ন রয়েছে।

আমতলী থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. শাহ আলম হাওলাদার মুঠোফোনে বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতালে পুলিশ পাঠিয়েছি। এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা