kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

বাংলাবান্ধাকে নতুন রুপে সাজানোর পরিকল্পনা আমদানি-রপ্তানিকারকদের

অনলাইন ডেস্ক   

১৬ জুন, ২০২১ ১৯:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলাবান্ধাকে নতুন রুপে সাজানোর পরিকল্পনা আমদানি-রপ্তানিকারকদের

দেশের সর্ব উত্তরের স্থলবন্দর বাংলাবান্ধার গুরুত্ব অনেক। শুধু বাণিজ্যিকভাবে নয়, বরং পর্যটন শিল্পের বিকাশেও এই স্থলবন্দর উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে পারে। তাই এই বন্দরকে এখন থেকে নতুন রুপে সাজানো হবে। তবে এই মুহূর্তে বিশেষ জোর দিতে হবে পণ্য আমদানী-রপ্তানির পাশাপাশি করোনার স্বাস্থ্যবিধি যাতে উপেক্ষিত না হয় সেই বিষয়টিতে।

বুধবার দুপুরে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এমন প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন বাংলাবান্ধা বন্দরের আমদানি-রপ্তানীকারক গ্রুপের নব গঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দ। তেঁতুলিয়া ডাকবাংলোর রেরং কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত মতবিনিময়সভায় এসব পরিকল্পনার কথা জানান তারা।

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর আমদানি রপ্তানীকারক গ্রুপের নবনির্বাচিত সভাপতি ও বাংলাদেশ কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আব্দুল লতিফ তারিন নতুন কমিটির পরিচিতি তুলে ধরে তার বক্তব্যে বলেন, ব্যবসায়িক কার্যক্রম বৃদ্ধি, পর্যটন শিল্পের বিকাশ এবং ভারত, নেপাল, ভূটান এবং চীনের সাথে সাংস্কৃতিক সম্পর্ক স্থাপনের জন্য নতুনভাবে উদ্যোগ গ্রহণ করার পরিকল্পনা করেছি আমরা। সরকারও বাংলাদেশের স্থল বন্দরগুলোকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। তিনি স্থলবন্দর ও জেলার কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও জনসচেতনতা তৈরিতে সাংবাদিকদের ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক ও বাংলাবান্ধা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কুদরত ই খুদা মিলন, সহ-সভাপতি আবু তোয়াবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ মোজাফফর হোসেন প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আমদানি-রপ্তানীকারক গ্রুপের সহ-সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শাহীন, দপ্তর সম্পাদক মানিক প্রধান, নর্দান বাবু প্রমুখ।

গণমাধ্যমকর্মীরা বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের সম্ভাবনা ও সমস্যা তুলে ধরে বিভিন্ন মতামত ও প্রশ্ন উত্থাপন করলে সেগুলো বাস্তবায়নে আশ্বাস দেন সাধারণ সম্পাদক কুদরত ই খুদা মিলন।



সাতদিনের সেরা