kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

কক্সবাজার বিমানবন্দর : ১১১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পেল ভূমি মালিকরা

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

১৬ জুন, ২০২১ ১৫:৩৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কক্সবাজার বিমানবন্দর : ১১১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পেল ভূমি মালিকরা

কক্সবাজার বিমানবন্দর সম্প্রসারণ প্রকল্পে ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিকদের মধ্যে মোট ১১১ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ চেক বিতরণ করেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন। আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে কক্সবাজার বিমানবন্দরের নির্মাণাধীন টার্মিনাল ভবনে চেক বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ।

জেলা প্রশাসন জানায়, ১১১ কোটি সাত লাখ ২৫ হাজার টাকা ৫ বছর ধরে সরকারি ব্যাংকে পড়ে থাকায় লাভসহ ক্ষতিগ্রস্তরা এখন হাতে পাচ্ছেন। একটু দেরি হলেও নিজের অধিকারটা সঠিকভাবে পাচ্ছেন তারা। মামলা-মোকদ্দমা  নিষ্পত্তি করে ক্ষতিপূরণের টাকা পেলেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আমিন আল পারভেজ বলেন, 'বাইরের কোনো মধ্যস্বত্বভোগী আমাদের অফিসের নাম ব্যবহার করে ভাগ বসাতে পারেনি। যার যার ক্ষতিপূরণ তিনিই নিজ হাতে বুঝে পেয়েছেন।'

এ সময় কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ বলেন, যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তারা সরাসরি ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন। এখানে বাইরের কেউ যেন সুবিধা না নিতে পারে সে জন্য আমরা সচেতন রয়েছি। আমাদের টার্গেট হচ্ছে, যাদের ক্ষতিপূরণ চেক দেব, তাদের প্রকল্প এলাকায় গিয়ে, বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে দেব। আমাদের এই ধারাবাহিকতা যেন অব্যাহত থাকে, সে জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করছি। 

বিমানবন্দর সম্প্রসারণ প্রকল্প বাস্তবায়নে যারা জমি, শ্রম দিয়ে ও নানাভাবে সরকারকে সহযোগিতা করেছেন, তাদের ধন্যবাদ জানান জেলা প্রশাসক। এ ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্য কেউ কোনো প্রকার টাকা দাবি করে থাকলে তা সরাসরি জেলা প্রশাসককে অবহিত করার জন্য তিনি অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন গুণ ক্ষতিপূরণ দিয়ে দেশের উন্নয়নের জন্য বিমানবন্দর প্রকল্প বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কেউ যেন দালাল চক্র দ্বারা প্রতারিত না হয়, সেদিকে প্রধানমন্ত্রীর নজরদারি রয়েছে। একসময়ের অনুন্নত জায়গা এখন কোটি কোটি টাকায় অধিগ্রহণ হচ্ছে, সেটা অবশ্য কক্সবাজারবাসীর জন্য সৌভাগ্যের ব্যাপার।'

প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, 'কোনো দালাল বা তৃতীয় পক্ষ না ধরে ভূমি অধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি জমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের এলএ শাখায় যোগাযোগ করলে অতি সহজে স্বল্প সময়ের মধ্যে ক্ষতিপূরণ পাবেন।'

চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মেয়র মজিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আবছার, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল, প্রেস ক্লাব সভাপতি আবু তাহের, সাধারণ সম্পাদক মো. মুজিবুল ইসলাম প্রমুখ।



সাতদিনের সেরা