kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

তিস্তা ও ব্রহ্মপু‌ত্রের ভাঙ‌নে একমাসে ৬০০ বসতভিটা নদীগর্ভে বিলীন

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি   

১৪ জুন, ২০২১ ১৮:১১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তিস্তা ও ব্রহ্মপু‌ত্রের ভাঙ‌নে একমাসে ৬০০ বসতভিটা নদীগর্ভে বিলীন

কুড়িগ্রামের উলিপুরে ব্রহ্মপুত্র ও তিস্তা নদীর ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। এক মাসের ব্যবধানে তিস্তা নদীর ভাঙনে উপজেলার চর বজরা, পশ্চিম বজরা, পূর্ব বজরা, গোড়াইপিয়ার, থেতরাই পাকার মাথা, নাগড়াকুড়া টি-বাঁধ ও ব্রহ্মপুত্র নদের বালাডোবা, উত্তর বালাডোবা, ভোগলের কুঠি ও সীমান্তবর্তী সুন্দরগঞ্জ উপজেলার লকিয়ার পাড়, কাশিম বাজার এলাকার প্রায় ৬ শত বসতভিটা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

ভাঙন আতংকে রয়েছে আশপাশের গ্রামের মানুষজন। তিস্তা নদীর ভাঙন ঠেকাতে ইতিমধ্যে কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড কাশিমবাজার এলাকায় জিও ব্যাগ ডাম্পিংয়ের কাজ শুরু করেছে। সোমবার (১৪ জুন) দুপুরে উপজেলায় তিস্তা নদীর ভাঙন কবলিত নাগড়াকুড়া টি-বাঁধ, গোড়াইপিয়ার ও কাশিম বাজার এলাকা পরিদর্শ করেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের উত্তরাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী জ্যোতি প্রসাদ ঘোষ।

পরিদর্শনকালে ওই কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, তিস্তা নদীর ভাঙন রোধে আমরা ইতিমধ্যে বেশ কিছু জরুরি প্রকল্প হাতে নিয়েছি। এসব প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। ভাঙন রোধে দ্রুত স্থায়ী প্রকল্পের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ারও আশ্বাস দেন তিনি।

এ ছাড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের রংপুর (পওর) সার্কেল-১ তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুস শহীদ, কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, উপসহকারী প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম তিস্তা নদী রক্ষা কমিটির সভাপতি ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আলম সরদার উপস্থিত ছিলেন।



সাতদিনের সেরা