kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

ত্রাণ নিয়ে সিঙ্গাইর ইউএনও’র বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা মিলেনি

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জ   

১৪ জুন, ২০২১ ০৩:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ত্রাণ নিয়ে সিঙ্গাইর ইউএনও’র বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা মিলেনি

ইউএনও রুনা লায়লা

চলমান করোনা সংকটে ৩৩৩-এর জরুরী ত্রাণসামগ্রী নিয়ে মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুনা লায়লার বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের সত্যতা মিলেনি তদন্তে। এমনকি তাকে শোকজ করার তথ্যটিও মিথ্যা বলে দাবি করেন তদন্ত কর্মকর্তা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরুজ্জামান। রবিবার (১৩ জুন) তদন্ত শেষে সাংবাদিকদের কাছে এমন তথ্য উপস্থাপন করেন তিনি।

সম্প্রতি 'সিঙ্গাইরের ইউএনও’র গুদামে নষ্ট হচ্ছে ত্রাণ' ৩৩৩-এ ফোন দিয়ে মেলেনি ত্রাণ, সিঙ্গাইরে ইউএনও’র গ্যারেজে নষ্ট হচ্ছে জরুরি ত্রাণসামগ্রী, জরুরি ত্রাণসামগ্রী নষ্ট, ‌'সিঙ্গাইরের ইউএনওকে শোকজ' শিরোনামে দুটি বেসরকারি টেলিভিশনসহ কয়েকটি জাতীয় দৈনিক ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌসের নির্দেশে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুনা লায়লার বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে প্রকাশিত এসব অভিযোগের তদন্ত করতে রবিবার (১৩ জুন) সিঙ্গাইর উপজেলা পরিষদে আসেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরুজ্জামান। সরেজমিনে তদন্তকালে ঘটনাটি নিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুশফিকুর রহমান খান হান্নান, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার, স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মী, ইউপি চেয়ারম্যান, ত্রাণ বিতরণ কমিটির দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেন তিনি। এছাড়া ত্রাণসামগ্রী সংরক্ষণের স্থানটিও পরিদর্শন করেন।

তদন্ত শেষে ৩৩৩- এর জরুরি ত্রাণসামগ্রী নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুনা লায়লার বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সব অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি করে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরুজ্জামান উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, তদন্তে কোনো অভিযোগেরই সত্যতা পাওয়া যায়নি।

এছাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুনা লায়লাকে শোকজ করা হয়েছে মর্মে যে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে সেটিও সঠিক নয়। তদন্তে পাওয়া তথ্যমতে আগামী দুই এক দিনের মধ্যে জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌসের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। 

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মুসফিকুর রহমান খান হান্নান জানান, ৩৩৩-এর জরুরী ত্রাণসামগ্রী নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে যেসব সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা আদৌ সত্য নয়। এটি তদন্তে মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে।



সাতদিনের সেরা