kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

ক্ষতিপূরণের চেক বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিলেন ডিসি

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

১২ জুন, ২০২১ ১৮:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্ষতিপূরণের চেক বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিলেন ডিসি

বাগেরহাটের শরণখোলায় বেড়িবাঁধ নির্মাণে অধিগ্রহণকৃত জমির মালিকদের কাছে গিয়ে ক্ষতিপূরণের চেক বিতরণ করলেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ আজিজুর রহমান।

আজ শনিবার সকাল ১১টায় উপজেলার কদমতলা এলাকার সুনীল শিকারীর বাড়ির সামনে বাঁধের ওপর দাঁড়িয়েই ২২ জন ক্ষতিগ্রস্তের প্রত্যেকের হাতে মোট ৭৫ লাখ ৯৬ হাজার ৪৫৬ টাকার চেক তুলে দেন ডিসি।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপকূলীয় বাঁধ উন্নয়ন প্রকল্পের (সিইআইপি) মাধ্যমে শরণখোলায় ৩৫/১ পোল্ডারে টেকসই বাঁধ নির্মাণের জন্য এই জমি অধিগ্রহণ করা হয়।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শূন্য সহিষ্ণু নীতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে এসে ক্ষতিপূরণের চেক বিতরণ করা হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা যাতে দালালের খপ্পরে পড়ে আরো ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেজন্যই এই পন্থা অবলম্বন করা হয়েছে। এ ছাড়া এখনো যারা ভূমি অধিগ্রহণের টাকা পাননি তাদেরকে কোনো দালাল না ধরে সরাসরি আমার (জেলা প্রশাসক) কাছে অথবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে কাগজপত্র নিয়ে যোগাযোগ করলে দ্রুত সময়ের মধ্যে তা সমাধান করা হবে।

বলেশ্বর নদে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন মো. ইলিয়াছ শেখ। তিনি পেয়েছেন ৩৫ লাখ ৩৩ হাজার ৫২২ টাকার চেক। এক সঙ্গে এতো টাকার চেক হাতে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয়ে বলেন, দালাল ধরলে আর এতো টাকা পাইতাম না!

বাঁধের পাশে ঝুপড়ি তুলে থাকতেন রায়েন্দা বাজারের ঝাড়ুদার মো. নূরুল ইসলাম। তিনিও ৫৩ হাজার ৭১৩ টাকার চেক পেয়ে খুব খুশি। কোনো প্রকার হয়রানি ছাড়া বাড়িতে বসে হাতে হাতে চেক পেয়ে একইভাবে সবাই জেলা প্রশাসককে ধন্যবাদ জানান।

চেক বিতরণকালে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. শাহীনুজ্জামান, শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন, ভূমি অধিগ্রহন কর্মকর্তা মমতাজ বেগম, স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।



সাতদিনের সেরা