kalerkantho

শুক্রবার । ১১ আষাঢ় ১৪২৮। ২৫ জুন ২০২১। ১৩ জিলকদ ১৪৪২

অপহরণের ৫৫ ঘণ্টা পর বড়লেখায় ব্যবসায়ী উদ্ধার

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

৭ জুন, ২০২১ ২০:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অপহরণের ৫৫ ঘণ্টা পর বড়লেখায় ব্যবসায়ী উদ্ধার

অপহরণের প্রায় ৫৫ ঘণ্টা পর মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের বাহাদুরপুর চা বাগান থেকে ব্যবসায়ী শশাংক কুমার দত্তকে (৫৮) উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার (৬ জুন) দিবাগত রাত দেড়টায় পুলিশ, ডিবি ও র্যাব যৌথ অভিযান চালিয়ে বাগানের নির্জন জঙ্গল থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এ সময় দুই অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। অন্যদিকে সোমবার দুপুরে ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারীদের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় মোট ৩জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অপহৃত শশাংক কুমার দত্ত বড়লেখা পৌর শহরের বারইগ্রামের বাসিন্দা সতেন্দ্র কুমার দত্তের বড় ছেলে। তিনি শহরের হাজীগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের চন্ডিনগর গ্রামের সবুজ হোসেন, ইব্রাহিম আলীর ছেলে ইসমাইল আহমদ ওরফে হারুন ও বোবারথল গ্রামের আব্দুল খালিকের ছেলে জুলমান আহমেদ।

গত শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে তিনি নিখোঁজ হন। এরপর তার মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ লাখ টাকা দাবি করেছিল অপহরণকারীরা। মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া তার কার্যালয়ে সোমবার সকাল সাড়ে ১২টায় সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত ৪ জুন শুক্রবার সন্ধ্যা অনুমান ৬টায় শশাংক কুমার দত্ত বাড়ি হতে সিলেট টিলাগড়স্থ ভাড়াটিয়া বাসার উদ্দেশ্যে বড়লেখা উত্তর চৌমহুনাস্থ পোস্ট অফিসের সামনে থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশা রওয়ানা করেন। এরপর তিনি বিয়ানীবাজার থানার বারইগ্রামে সিএনজি পরিবর্তন করে সিলেট যাওয়ার উদ্দেশ্যে আরেকটি সিএনজি গাড়িতে উঠেন। সিএনজি গাড়ি যোগে বারইগ্রাম হতে সিলেট যাওয়ার পথে সিলেট বিয়ানীবাজার থানার মোল্লাপুর রাস্তার সম্মুখে পৌঁছলে একটি মাইক্রোবাস শশাংকের সিএনজি গাড়িটি গতিরোধকরে তাকে মাইক্রোবাসটিতে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়।

অপহরণকারী চক্র শশাংক দত্তকে একটি অজ্ঞাতস্থানে রেখে বিভিন্ন ভিওআইপি নাম্বার হতে শনিবার ভিকটিমের ছোট ভাই সুবোধ কুমার দত্তের মোবাইলে ফোন করে মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। এরপর তিনি (সুবোধ) থানায় এসে আইনগত সহায়তা চাওয়ার পরপরই থানা পুলিশের বিশেষ টিম, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষগণ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে রহস্য উদ্ঘাটনে একটানা অভিযান অব্যাহত রাখে। এরপর রবিবার দিবাগত রাত দেড়টায় বাহাদুরপুর চা বাগানের গভীর জঙ্গল থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।



সাতদিনের সেরা