kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১০ আষাঢ় ১৪২৮। ২৪ জুন ২০২১। ১২ জিলকদ ১৪৪২

বাবা-মা বাসায় নেই, এই সুযোগে বাঁশঝাড়ে নিয়ে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ

জামালপুর প্রতিনিধি   

৩১ মে, ২০২১ ১৮:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাবা-মা বাসায় নেই, এই সুযোগে বাঁশঝাড়ে নিয়ে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ

জামালপুরে দরিদ্র এক রিকশাচালকের মেয়ে মানসিক প্রতিবন্ধী এক কিশোরী (১৬) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। জামালপুর পৌরসভার শাহপুর জামতলা এলাকায় গতকাল রবিবার দুপুরে প্রতিবেশী সোহেল মিয়া (৩৫) নামের এক ব্যক্তি তাকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযুক্ত সোহেল স্থানীয় শাহপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কুদ্দুছের ছেলে। তাকে আসামি করে আজ সোমবার জামালপুর সদর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ঘটনার পর থেকে সোহেল পলাতক রয়েছেন।

ভিকটিমের পরিবার সূত্র জানায়, ভিকটিম ওই কিশোরীর বাবা পেশায় রিকশাচালক। তার মা অন্যের বাসায় ঝিয়ের কাজ করেন। জামালপুর পৌরসভার শাহপুর জামতলা এলাকায় জনৈক আব্দুল আউয়ালের বাসার ভাড়াটে তারা। গতকাল রবিবার দুপুরে কিশোরীর বাবা-মা বাসায় ছিলেন না। এই সুযোগে প্রতিবেশী বখাটে সোহেল মিয়া দুপুর আড়াইটার দিকে ফুঁসলিয়ে কিশোরীকে তাদের বাসার কাছেই নির্জন স্থানে বাঁশঝাড়ের নিচে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান সোহেল মিয়া। ঘটনাটি জানাজানি হলে রবিবার রাতে স্থানীয় একটি অসাধুচক্র ঘটনা আপসের জন্য চাপ দেয় ভিকটিমের বাবা-মাকে।

ভিকটিমের বাবা-মা এতে রাজি না হয়ে রবিবার রাতেই জামালপুর সদর থানায় গিয়ে ওসির কাছে ঘটনার বিচার চেয়ে অভিযোগ করেন। আজ সোমবার সকালে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে তার মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে জামালপুর সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলা দায়েরের পর জামালপুর সদর হাসপাতালে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। মামলার আসামি সোহেল মিয়া বিবাহিত এবং তার স্ত্রী-সন্তান রয়েছে। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন।

জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রেজাউল ইসলাম খান কালের কণ্ঠকে বলেন, শহরের শাহপুর এলাকায় মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে তার মা বাদী হয়ে অভিযুক্ত সোহেল মিয়াকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আসামি সোহেল মিয়াকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।



সাতদিনের সেরা