kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

জুয়া খেলে স্বামী, ফেরাতে না পেরে না ফেরার দেশে স্ত্রী

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৮ মে, ২০২১ ১১:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জুয়া খেলে স্বামী, ফেরাতে না পেরে না ফেরার দেশে স্ত্রী

প্রতীকী ছবি।

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার পল্লীতে জেসমিন আক্তার (২৬) নামের এক গৃহবধু আত্মহত্যা করেছেন। জুয়া খেলতে নিষেধ করা নিয়ে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার (২৭ মে) রাতে নন্দীগ্রাম উপজেলার ভাটরা ইউনিয়নের মণিনাগ গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (২৮মে) সকালে পুলিশ গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার সকালে স্বামী সাইদুল ইসলামকে জুয়া খেলতে নিষেধ করে স্ত্রী জেসমিন আক্তার। এনিয়ে দুইজনের মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে স্বামীর ওপর অভিমান করে স্ত্রী জেসমিন আক্তার সবার অজান্তে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে বিষয়টি পরিবারের লোকজন জানতে পেরে দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে সুস্থ্য হলে সে দিনই জেসমিনকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। পরে বৃহস্পতিবার রাতে গৃহবধু জেসমিন আক্তার মারা যান।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠায়।

নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুল ইসলাম বলেন, গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার করে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ যানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা