kalerkantho

শনিবার । ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১২ জুন ২০২১। ৩০ শাওয়াল ১৪৪২

মির্জাপুরে বকেয়া গ্যাস বিল নিতে এসে দুই প্রতারক গ্রেপ্তার

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

২৬ মে, ২০২১ ০৫:২৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মির্জাপুরে বকেয়া গ্যাস বিল নিতে এসে দুই প্রতারক গ্রেপ্তার

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বকেয়া গ্যাস বিলের নামে টাকা আদায় করতে এসে জনতার কাছে ধরা খেল দুই প্রতারক। মঙ্গলবার (২৫ মে) দুপুরে মির্জাপুর উপজেলা সদরের পোষ্টকামুরী পূর্বপাড়া এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে টাকা, একটি ডায়েরি, তিতাস গ্যাসের ঠিকাদার প্রতিনিধির ভুয়া পরিচয়পত্রও উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার ছবুর উদ্দিনের ছেলে ফিরোজ আহমেদ (৩২) ও কালিহাতি উপজেলার পিচুরিয়া গ্রামের শাসছুদ্দিনের ছেলে রাশেদ  তালুকদার (৩৫)। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিতাস গ্যাস টাঙ্গাইল অফিসের ম্যানেজার আব্দুর রউফ তাদের বিরুদ্ধে মির্জাপুর থানায় মামলা করেন।

জানা গেছে, গ্রেপ্তারকৃত ফিরোজ ও রাশেদ দীর্ঘদিন ধরে মির্জাপুর উপজেলা সদরের বিভিন্ন বাসা বাড়িতে গিয়ে গ্যাসের বিল বকেয়া আছে ও চুলা বৃদ্ধির অজুহাত এনে লাইন বিচ্ছিন্ন করার হুমকি দেয়। এছাড়া অনেক গ্রাহকের বই নম্বর কম্পিউটারে এন্টি নেই বলেও ভীতি সৃষ্টি করে। পরে গ্রাহকের সঙ্গে আলোচনায় তারা টাকায় রফা করে চলে আসতেন। প্রতারণার মাধ্যমে তারা মির্জাপুরের বিভিন্ন বাসা বাড়ি থেকে প্রতি মাসে বিভিন্ন অংকের টাকা আদায় করে থাকেন বলে গ্রাহকরা অভিযোগ করেন।

মঙ্গলবার সকাল থেকে নিজেদের টাঙ্গাইল তিতাস গ্যাস অফিসের লোক পরিচয় দিয়ে  সদরের কয়েকটি বাসা বাড়িতে গিয়ে বকেয়া বিল রয়েছে এবং অনুমোদনের চেয়ে বেশি চুলা জালানোর অভিযোগ এনে লাইন বিচ্ছিন্ন করা হবে বলে জানান। এতে গ্রহকরা কিছুটা ভীত হয়ে তাদের সঙ্গে টাকায় রফা করেন। প্রতারকরা এভাবে প্রতারণা করে কয়েকটি বাসা থেকে টাকাও আদায় করেন।

এছাড়া যেসব বাসায় মালিক না পাওয়া গেছে তাদের ফোন নম্বর সংগ্রহ করে মুঠোফোনে কল দিয়ে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ না করলে লাইন বিচ্ছিন্ন করার হুমকিও দেয় বলে গ্রাহকরা জানিয়েছেন।

দুপুরে পোষ্টকামুরী পূর্বপাড়া এলাকার কয়েকটি বাসায় একইভাবে কথাবার্তা বললে তাদের সন্দেহ হয়। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ সময় জনতা মো. রাশেদ তালুকদার, তিতাস গ্যাস টি এন্ডডি কোং লি: মেসার্স এম এম এন্টারপ্রাইজ ঠিকাদার প্রতিনিধি পরিচয়পত্র (ঠিকাদারী সংকেত-১.১/১৩৯), গ্রাহকের কাছ থেকে আদায় করা টাকা ও একটি ডায়েরিসহ ওই দুই প্রতারককে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। ডায়েরিতে মির্জাপুর সদরের বিভিন্ন বাসার মালিকের নাম ও ফোন নম্বর রয়েছে।

মির্জাপুর থানার উপরিদর্শক (এসআই) মো. হাবিবুর রহমান উকিল জানান, তিতাস গ্যাস টাঙ্গাইল অফিসের ম্যানেজার বাদি হয়ে তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা করেছেন।

তিতাস গ্যাস টাঙ্গাইল অফিসের ম্যানেজার আব্দুর রউফের সঙ্গে রাতে কথা হলে তিনি মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।



সাতদিনের সেরা