kalerkantho

বুধবার । ২ আষাঢ় ১৪২৮। ১৬ জুন ২০২১। ৪ জিলকদ ১৪৪২

‘অনিশ্চিত জীবন থেকে মুক্তি দিন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিন’

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি   

২৫ মে, ২০২১ ১২:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘অনিশ্চিত জীবন থেকে মুক্তি দিন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিন’

যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে অবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয় এবং দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়াসহ সাত দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা। আজ মঙ্গলবার (২৫ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধ অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী সুদীপ্ত বিশ্বাসের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন একই বিভাগের শিক্ষার্থী সাহাদাত হোসেন ও আরিফ আহমেদ। মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা 'শিক্ষার অধিকার ফেরত চাই, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা চাই, 'অনিশ্চিত জীবন থেকে মুক্তি দিন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিন’ ইত্যাদি স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মণিসহ সংশ্লিষ্ট সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। পরে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে লিখিত ৭ দফা দাবি পাঠ করেন বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধ অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী সাহাদাত হোসেন।

দাবিগুলোর মধ্যে ছিল- স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হল, হোস্টেল খুলে দেওয়া এবং সকল শিক্ষার্থীদের জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করা; সুষ্ঠু পাঠ-পরিকল্পনা গ্রহণ, আটকে থাকা গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষাগুলোর সংক্ষিপ্ত সিলেবাস এবং সময় বাড়িয়ে নেওয়া, যে পরীক্ষা যে সিলেবাস অনুযায়ী হবে তার পরবর্তী ভর্তি পরীক্ষাগুলো সে সিলেবাস অনুযায়ী নেওয়া; শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যতদিন বন্ধ ছিল সেই বেতনের চারভাগের এক ভাগ বেতন নিয়ে নেওয়া এবং অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফ করা; কোনো শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তদারকিতে আক্রান্ত শিক্ষার্থীর চিকিৎসা করানো এবং আক্রান্ত হওয়ার ফলে কোনো পরীক্ষা দিতে শিক্ষার্থী অপারগ হলে পরবর্তীতে তাকে সাপ্লিমেন্টারি পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ করে দেওয়া; রিভিউ ক্লাস, এক্সট্রা ক্লাস, ওপেন ক্রেডিট, ব্যাকলগ পরীক্ষা ইত্যাদি সুবিধাসমূহ দিয়ে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার ক্ষতিপূরণের সুযোগ প্রদান এবং এর জন্য অতিরিক্ত কোনো ফি আদায় না করা; অটোপ্রমোশন বা অটোপাশ নয় সেশনজট এড়াতে প্রয়োজনে সেশনের সময়সীমা কমানো; শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে রোডম্যাপ তৈরি ও বাস্তবায়ন করা এবং শিক্ষাখাতে অবকাঠামোগত উন্নয়নে ও সার্বিক কাজে বাজেট বৃদ্ধি করা।



সাতদিনের সেরা